শিক্ষাঙ্গন বার্তাশিরোনাম

প্রতিযোগিতায় খেলোয়ারের জায়গায় কোচ-ই যখন প্রতিযোগী !

কামরুল হাসান অভি, রাবি : প্রতিযোগিতাটি ছাত্রদের হলেও অংশ নিয়েছে স্বয়ং কোচ! এমন অভিযোগ উঠেছে বঙ্গবন্ধু আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় এ্যাথলেটিকস প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়া এক প্রশিক্ষক ও কোচের বিরুদ্ধে। অভিযোগ যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শরীর চর্চা প্রশিক্ষক ও কোচ ম্যানেজার উৎজল চন্দ্র সুত্রধরের বিরুদ্ধে। প্রশিক্ষক হয়েও প্রতিযোগিতার বিভিন্ন ইভেন্টে অংশ নিয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন ১৯ টি বিশ্ববিদ্যালয়। এনিয়ে প্রতিযোগিতা আয়োজক কমিটির সদস্য সচিব বরাবর অভিযোগ দিয়েছেন ওই বিশ্ববিদ্যালয় গুলো।
অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের চেচ নং ১৩২ খেলোয়াড় উৎজল চন্দ্র সুত্রধর বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয়র শারীরিক শিক্ষা বিভা চর্চাগে শরীর প্রশিক্ষক পদে কর্মরত আছে। একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের এ্যাথলেটিক প্রশিক্ষক হয়ে প্রতিযোগিতায় বিভিন্ন ইভেন্টে এ্যাথলেটে অংশ নেয়া বাংলাদেশের সকল বিশ্ববিদ্যালয়ের কোচ ম্যানেজারদের জন্য লজ্জাজনক। বাংলাদেশ আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় স্পোটস বোর্ড গঠনতন্ত্র ১৯ অনুচ্ছেদ ও বঙ্গবন্ধু আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় এ্যাথলেটিকস প্রতিযোগিতা ২০২০ এর বাইলজ লংঘন।
অভিযোগপত্রে স্বাক্ষর করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, শেরে বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, মাওলানা ভাসানী বিশ্ববিদ্যালয়, পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, পটুয়াখালি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, রাঙ্গামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, নোয়াখালি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়সহ ১৯ টি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশিক্ষক প্রতিনিধিরা। অভিযুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের বিরুদ্ধে ব্যবস্থাগ্রহনের জন্য অনুরোধ করেছেন তারা।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে বঙ্গবন্ধু আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় এ্যাথলেটিক্স প্রতিযোগিতার সদস্য সচিব আসাদুজ্জামান বলেন, বিষয়টি নিয়ে আয়োজক কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সেখানে সিদ্ধান্ত হয়েছে প্রশিক্ষক হিসেবে প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়ার আইনগত যোগ্যতা রাখেন না। তাই তিনি যেসব প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে পদক লাভ করেছেন সেগুলো পরবর্তী প্রতিযোগিকে স্থলাভিসিক্ত করে পুরস্কার দেওয়া হবে এবং অভিযুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের বিরুদ্ধে ব্যবস্থাগ্রহনের জন্য সুপারিশ করা হবে। বরেন্দ্র বার্তা/অপস

Close