মহানগরশিরোনাম

দিন মজুর নারীরা জানেনা নারী দিবস কি!

ফজলুল করিম বাবলু, রাজশাহী : নানা কর্মসূচীর মাধ্যমে রাজশাহী নগরীসহ বিভিন্ন স্থানে যথাযোগ্য মর্যাদায় আন্তর্জাতিক নারী দিবস পালিত হয়। এ উপলক্ষে র‌্যালী, মানববন্ধন ও আলোচনা সভার আয়োজন করে নানা সংগঠন। ‘প্রজন্ম সমতায় এগিয়ে চলি, নারীর অর্জন করি’ এ স্লোগান নিয়ে রোববার পালিত হয় এই দিবসটি। শুধুমাত্র নারী হিসেবে নয় একজন মানুষ হিসেবে পরিপূর্ণ অধিকার ও মর্যাদা প্রতিষ্ঠার দাবিতে দীর্ঘদিন ধরে নারীরা যে আন্দোলন চালিয়ে আসছে তার প্রতি সম্মান প্রদানের লক্ষ্যে প্রতি বছর ৮ মার্চ বিশ্বব্যাপি পালিত হয়ে আসছে আন্তর্জাতিক নারী দিবস।
ঘটা করে বিশ্বের ন্যায় যখন বাংলাদেশেও দিবসটি যথাভাবে পালিত হয়, তখন অসহায় দরিদ্র দিন মজুর নারীরা জানেই না ৮মার্চ কোন দিবস। এই দিবসে কি-বা হয়। তারা আপন মনে কাজ করে চলছে ক্ষেতে, রাস্তায় এবং নোংরা থেকে পলেথিন, প্লাস্টিকসহ নানা পন্য কুড়ানোতে।  রোববার রাজশাহী সিটি বাইপাশে গেলে অনেক আদিবাসী নারীদের রাস্তায় কাজ করতে দেখা যায়। এরমধ্যে রাজশাহী বাগানপাড়ার আনছিলা টুডু, নির্মলা মার্ডি ও শান্তি হেম্ব্রম এবং গোদাগাড়ীর পাইতাপুকুরের নির্মলা সরেন বলেন, নারী দিবস আবার কি?। কাজ না করলে ভাত হবেনা। পরিবারের সদস্যরা খাবার পাবেনা। আবার এখানে ঠিকাদারের অধিনে কাজ করছি। একদিনও বাদ দেয়া কিংবা দেরী করা যাবেনা। এই অবস্থায় কেউ ডাকলেও তারা দিবস পালন করতে যেতে পারবেনা।
উপস্থিত অন্যান্য নারীরা বলেন, গরীবদের কথা কেউ শোনেনা। যারা ডেকে নিয়ে যায় র‌্যালি কিংবা আলোচনা সভায় তারাই টাকা নয়ছয় করে খেয়ে নেয়। একটি টাকাও তাদের দেয়না। নিজেদের পেট ভরায়। তাহলে দিন কামাই করে লাভ কি বলে মন্তব্য করেন তারা। নির্মলা সরেন বলেন, আমরা দিন মজুরী করে সংসার চালাই। তাদের জাতীতে মূলত নারীরাই বেশী কাজ করে থাকেন। কিন্তু কৃষি মজুরীতে রয়েছে বৈষম্য। পুরুষকে ৩০০টাকা দিলে নারীদের দেয়া হয় ২৫০ টাকা। কিন্তু তারা সমান তালে কাজ করে যান। তবে ঠিকাদারের অধিনে সবাই সমান। নারী পুরুষ সবাই সমান মজুরী পান বলে জানান তিনি।
এদিকে আবর্জনরা স্তুপ থেকে বিভিন্ন পন্য কুড়ানো সখিনা বিবি বলেন, নারীর আবার দিবস কি। সারাদিন ডাস্টবিন থেকে প্লাস্টিক, পলেথিন, লোহা ও অন্যান্য উপকরণ কুড়িয়ে তা বিক্রি করে সংসার পরিচালনা করি। রাতে রেললাইানের ধারে ঝুপরির মধ্যে বসবাস করি। আমাদের কোন স্বাদ আহলাদ নাই। সকাল হতে সন্ধ্যা পর্যন্ত একই রকম কাজ করি বলে জানান তিনি। বরেন্দ্র বার্তা/অপস

Close