বগুড়াশিরোনাম-২

বগুড়ায় দুদলের ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ২০ মামলার আসামি নিহত

বরেন্দ্র বার্তা ডেস্ক: বগুড়া শহরে দুদল সন্ত্রাসীর মধ্যে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ এক যুবক নিহত হয়েছেন। নিহতের নাম কবির হোসেন মিনকো (৪০)।
পুলিশের দাবি, নিহত কবির হোসেন চকফরিদ কলোনি ও পার্শ্ববর্তী শাজাহানপুর উপজেলার বিভিন্ন এলাকার কুখ্যাত সন্ত্রাসী। তিনি ছয়টি হত্যা, চাঁদাবাজিসহ অন্তত ২০ মামলার আসামি। কবির হোসেন মিনকো বগুড়া শহরের চকফরিদ কলোনির আজিজুল হকের ছেলে।
সোমবার রাতে শহরের মালতিনগর ভাটকান্দি ব্রিজ এলাকায় এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে।
মঙ্গলবার সকালে বগুড়া সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (মিডিয়া) সনাতন চক্রবর্তী এর সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। এ ব্যাপারে সদর থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানান তিনি।
পুলিশ ও এলাকাবাসী জানান, কবির হোসেন মিনকোর বিরুদ্ধে বগুড়া সদর ও শাজাহানপুর থানায় যুবলীগকর্মী মজনু প্রামাণিক ও নাহিদ হাসান জোড়া খুনসহ ছয়টি হত্যা, হত্যাচেষ্টা, অস্ত্র, চাঁদাবাজি ও বিভিন্ন অপরাধের অন্তত ২০টি মামলা রয়েছে।
গত ২০১৯ সালের জানুয়ারিতে অস্ত্রসহ গ্রেফতার হয়ে কিছু দিন জেলে ছিলেন তিনি। ৪-৫ মাস আগে জামিনে ছাড়া পেয়ে আবারও চাঁদাবাজিসহ নানা অপরাধে জড়িয়ে পড়েন। তার অত্যাচারে জনগণ অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছিলেন। এসব ঘটনায় সদর ও শাজাহানপুর থানায় ছয়টি জিডি হয়।
পুলিশ সূত্র জানায়, বগুড়া শহরের মালতিনগর ভাটকান্দি ব্রিজ এলাকায় সোমবার রাত দেড়টার দিকে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দুদল সন্ত্রাসীর মধ্যে প্রচণ্ড গোলাগুলি চলছিল।
খবর পেয়ে সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সনাতন চক্রবর্তী, সদর থানার ওসি এসএম বদিউজ্জামান, ডিবি পুলিশের ইন্সপেক্টর আসলাম আলী ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে যান। তারা সেখানে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় এক ব্যক্তিকে পড়ে থাকতে দেখেন। তাকে উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।
পরে নিশ্চিত হওয়া যায়, এটি বগুড়ার অন্যতম শীর্ষ সন্ত্রাসী কবির হোসেন মিনকোর মরদেহ।
ঘটনাস্থলে আট রাউন্ড গুলিভর্তি একটি রিভলবার, একটি ওয়ার শুটারগান, একটি বড় চাপাতি ও একটি বার্মিজ চাকু পাওয়া গেছে।
অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সনাতন চক্রবর্তী জানান, এ ঘটনায় সদর থানায় হত্যা ও অস্ত্র আইনে মামলার প্রস্তুতি চলছে। মিনকোর মরদেহ বগুড়া শজিমেক হাসপাতাল মর্গে রয়েছে। বরেন্দ্র বার্তা/অপস

সুত্র: যুগান্তর

Close