চাঁপাই নবাবগঞ্জশিরোনাম

সোনা মসজিদ দিয়ে ভারত প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা

নিজস্ব প্রতিবেদক: সোনা মসজিদ স্থলবন্দর দিয়ে শনিবার থেকে কোনো বাংলাদেশি পাসপোর্টধারী যাত্রী ভারতে প্রবেশ করতে পারবেন না।
কিন্তু ভারতীয় পাসপোর্টধারী যাত্রীদের বাংলাদেশে প্রবেশে কোনো বাঁধা নেই।
শুক্রবার (১৩ মার্চ) সন্ধ্যার পর ভারতীয় মহদিপুর ইমিগ্রেশন এ নিষেধাজ্ঞা জারির কথা সোনামসজিদ ইমিগ্রেশন পুলিশকে মৌখিকভাবে জানিয়েছেন।
এই বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সোনা মসজিদ ইমিগ্রেশন সেন্টারের উপ- পরিদর্শক (এসআই) জাফর ইকবাল।
এ বন্দর দিয়ে ভারতগামী যাত্রী জহির উদ্দিন জানান, তিনি তার ভাইয়ের চিকিৎসার জন্য আরও কয়েকদিন পরে যেতেন। কিন্তু ভারত সরকার ভিসা বন্ধ করে দেয়ায় ধার-দেনা করে শুক্রবারই ভারতে চলে যেতে হচ্ছে।
শুধু জহির উদ্দিনই নয় বরং এ রকম অনেক যাত্রী ভিসা বন্ধ হবার আশঙ্কায় গত শুক্রবার ভারতে প্রবেশ ও ভারত থেকে বাংলাদেশে চলে আসছেন।
এদিকে, সোনামসজিদ স্থলবন্দরে কর্মরত শ্রমিকদের মধ্যে অসন্তোষ লক্ষ্য করা গেছে। শ্রমিকরা পাসর্পোটধারী যাত্রী প্রবেশ বন্ধ হলেও আমদানি রপ্তানি চালু রাখার দাবি জানিয়েছেন।
অপরদিকে, করোনাভাইরাস শনাক্তকরণে বন্দরে কাজ করছেন তিন সদস্যের মেডিক‌্যাল টিম। পাসর্পোটধারী যাত্রী ভারতে গমন বন্ধ হলেও ভারত থেকে আগতদের পরীক্ষার জন্য মেডিক্যাল টিম বন্দরে কাজ করবে বলে জানিয়েছেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ সিভিল সার্জন ডা. জাহিদ নজরুল চৌধুরী।
তিনি আরও জানান, চাঁপাইনবাবগঞ্জের ভারত ও ইতালি ফেরত দুইজনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রেখে মনিটরিং করা হচ্ছে।
এসআই জাফর ইকবাল জানান, ইতোমধ্যে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রশাসন করোনাভাইরাস শনাক্তে নানামুখী পদক্ষেপ নিয়েছে। চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর হাসপাতালে চারটি ও পাঁচ উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সগুলোতে দুটি করে ১০টি আইসোলেশন ইউনিট স্থাপন করা হয়েছে। গত বুধবার থেকে ভারত ফেরত যাত্রীদের পূর্ণাঙ্গ ঠিকানা লিপিবদ্ধ করা হচ্ছে।
এদিকে, ভারত ভিসা বন্ধ করে দিচ্ছে— এ খবর জানার পর বন্দরে হঠাৎ করে পাসপোর্টধারী যাত্রীর উপচেপড়া ভীড় লক্ষ‌্য করা গেছে। বৃহষ্পতিবার দেড় শতাধিক যাত্রী পারাপার হলেও গত শুক্রবার বিকাল ৫টা পর্যন্ত আড়াই শতাধিক যাত্রী পারাপার হয়েছে। বরেন্দ্র বার্তা/অপস

Close