শিরোনাম-২সাহিত্য ও সংস্কৃতি

মুক্তির চিঠি

হুমায়ূন সিরাজ

 

২৬ শে মার্চ বন্ধুত্ব
হে প্রিয় বন্ধু শুভেচ্ছা…
বন্ধুত্ব একটি আত্মা বন্ধনে দু’টি ভিন্ন হৃদয়ে
বিভিন্ন আবেগে বেশ কিছু শরীরের নন্দনে অথবা
প্রতিটি রক্ত বিন্দুতে বন্ধুদের প্রিয় নাম অথবা
বন্ধুত্ব একই স্বার্থে নিয়োজিত কয়েকটি প্রাণ
ওই দূরের বন্ধুদের তারাদের স্বত্ব
মানচিত্রের সীমানা পেরিয়ে বন্ধুত্ব চৈতন্য চিত্রে নির্দেশনার নম্রতা
অথবা চিঠিপত্র ছিন্নপত্র অন্ত:জলিতে মিত্রতা
গণনা যন্ত্রে একটি দর্পনের স্বরে কথা বলা
এঁ একটি দর্শনের পথ চলা
অথবা একটি আদর্শ প্রতিষ্ঠা
নিয়ম নীতিতে এঁ কৃষ্টির সর্মিষ্ঠা
চলায় বলায় সমস্যার সমাধানে এঁ সৌন্দর্য ললিতকলায়
আর ভাষা শিক্ষা অর্থনীতি রাজনীতি নিবন্ধে
এবং কবিতা গল্প উপন্যাস ও প্রবন্ধে
অথবা জীবনী ও বক্তিতায়
বন্ধুত্বের মুক্তিতায়
হে বন্ধু
শীতের শেষে প্রভাতের শিশির সমীরণে
ভাইরাস দূর হোক কুইনাইন প্রয়োজন
করোনা যেন করেনা কোন ঝামেলা
লেটুস পাতা আর করোল্লা কখনও টমাটো
তুলসি পাতার রস যেন মধু মাখানো
লেবু ধৈনারপাতা রসুনের এক কোয়া
চৈত্রের দুপুরে আহারের পর গরম গরম মিষ্টি আলু
পাঁকা পাঁকা পেঁপে যেন প্রভাবক বেলের সরবত
কাজি পিয়ারায় আছে যেন নিশ্বাসের শ্বাস
অপূর্ব সফেদাতে পাবে তুমি শক্তির আশ্বাস
বসন্তের পর নক্ষত্র রাতে আহারের পর কমলা ও আপেল
সফেদ মেঘেতে লং যেন পরিস্কার করে কোন নিশ্বাস
ভাল থেকো
পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতা ও নিয়মানুবর্তিতার নায় কোন বিকল্প
স্যানিটাইজার দ্বারা নিয়মিত হাত ধোয়া
পরিধান করো মাস্ক ও গগজ
যেন বাঁচতে শেখায় ।
কখনও বাঁচতে যেন ভয় না হয়
কোন মায়া যেন বাঁচতে শেখায়
কখনও কোন রঙধনু প্লাবিত জ্যোস্না রাতে
যখন কোন বৃদ্ধা নারী সন্ধ্যা বাতি জ্বালিয়ে
মধু সুবাসে কোন ঝাউ গাছে পূজো দেয়
অথবা কেউ মুক্ত আকাশে শ্লোকের ঝড় তুলে
সুউচ্চ কোন শব্দে কোন বাউলের গানে
যেন নিয়ে চলে আমায় সুদূর কোন গ্রামে
হিসাবের কোন খাতা মিলিয়ে নিয়ে
চলে ওই নবীন কুলে
ভোর হল সন্ধ্যা হল
বাতি দিয়ে গেল কেউ
চাঁদের জ্যোস্নায় সুর্যেরই আলোর মত
কোন এক মেয়ে নিয়ে চলে অচেনা কোন পথে
কোন সুপারি গাছের তলে অচেনা কোন নামে
বাউলের কোন গানের আসরের পর
শুনি আযানের ধ্বনি
মোয়াজ্বিনের সেই নামাজে পূর্ণ্যি যেন
দেখ মুক্তি
তাকে দাও মুক্তি
হে রক্ষক দাও রক্ষণ
যে সত্যের রক্ষক যে নৈসর্গের রক্ষক
যে শ্রমিকর রক্ষক যে কৃষকের রক্ষক
তাকে দাও রক্ষণ
হে অধ্যাপক
হে জাতীয় অধ্যাপক
নারীদের দাও স্বস্থি নারীদের দাও মুক্তি
অযথা দেরি না করে আদমকে দাও মুক্তি
ভূমিহীনদের দাও স্বস্থি দাও মুক্তি
দেখ মাথার উপর চাঁদ উঠেছে
দেখ ঢোলক বাজে
দেখ বাজে বাঁশি
দেখ শ্যামা মেয়ে নাচে
ওই যে বিজ্ঞানে
এই যে সম্প্রদায়ে
সততা নিষ্ঠা ন্যায়ে মুক্তি
দাও শক্তি দাও ভক্তি
হে রক্ষক
হে উদারনাথ
হে মানব হে মানবী
দাও কৃষ্টি দাও সৃষ্টি
হে আল্লাহ্
দাও মুক্তি
ইতি তোমার সুহৃদ ॥

Close