নাটোরশিরোনাম-২

লালপুরে সাব রেজিস্টারের বিরুদ্ধে অনিয়ম দুর্নীতির অভিযোগে দলিল লেখক সমিতির কর্মবিরতি

আশিকুর রহমান, লালপুর (নাটোর): নাটোরের লালপুর উপজেলার সাব রেজিস্ট্রার ওবায়েদ উল্লাহর বিরুদ্ধে অনিয়ম দুর্নীতির অভিযোগ এনে অনির্দিষ্ট কালের জন্য কর্মবিরতি শুরু করেছে উপজেলা দলিল লেখক সমিতি । গত রোববার থেকে এ কর্মবিরতি শুরু হয়ে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত কর্মবিরতি অব্যাহত আছে। জানা গেছে, উপজেলা সাব রেজিস্ট্রার ওবায়েদ উল্লাহ লালপুরে যোগদানের পর থেকেই অফিসটি বিভিন্ন অনিয়ম ও দুর্নীতির আখড়া হিসেবে গড়ে তুলেছেন। তিনি দলিলের ধরন বুঝে দলিল লেখকদের কাছ থেকে দলিল প্রতি তার দাবিকৃত পার্সেনটেন্স গ্রহণ করেন। দলিল লেখকরা তার দাবিকৃত নির্দিষ্ট পার্সেন্ট দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে তাদের সাথে অশালীন আচরণ সহ বিভিন্ন অজুহাত দেখিয়ে দলিল সম্পাদন করেন না। সপ্তাহে ২ দিন( রবি ও সোমবার) জমি রেজিস্ট্রি করা হয়। তারপরেও তিনি নিয়তিম অফিস না করে স্ব- ইচ্ছায় অফিসে এসে তার চাহিদা মতো পার্সেন্টের দলিল গুলো সম্পাদন করে থাকেন। অপেক্ষাকৃত কম পার্সেন্টের বাকি দলিল গুলো সম্পাদন না করেই অফিস ত্যাগ করেন। এতে একদিকে যেমন সাধারণ গ্রাহকরা হয়রানি ও ভোগান্তির শিকার হন। অপরদিকে সরকার বিপুল পরিমাণ রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হয়। তার নানা অনিয়ম দুর্নীতির ফেরস্তী তুলে ধরে উপজেলা দলিল লেখক সমিতি অনির্দিষ্ট কালের জন্য কর্মবিরতি শুরু করেছেন। এ ব্যাপারে দলিল লেখক সমিতির যুগ্ম আহ্বায়ক সাইফুল ইসলাম জানান, সাব রেজিস্টার ওবায়েদ উল্লাহ বিভিন্ন প্রকার অনিয়ম দুর্নীতির মূল হোতা অফিস কর্মচারীদের মাধ্যমে একের পর এক দুর্নীতি করেই চলেছেন। তিনি আরো জানান, বিতর্কিত এই সাব রেজিস্টারের বিরুদ্ধে তার পূর্বের কর্মস্থলেও রয়েছে নানা অনিয়মের অভিযোগ। আমরা এই দুর্নীতি পরায়ন সাব রেজিস্টারের অপসারণ না হওয়া পর্যন্ত এই কর্মবিরতি অব্যাহত রাখবো। বিষয়টি উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের সঠিক তদন্ত সাপেক্ষে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জোর দাবী জানিয়েছে ভুক্তভুগী সাধারণ গ্রাহকরা। এ ব্যাপারে উপজেলা সাব রেজিস্টার ওবায়েদ উল্লাহর সাথে কথা বলতে চাইলে তিনি নিজ অফিসে থেকেই সাংবাদিক পরিচয় পেয়ে তিনি গা ঢাকা দেন। তাৎক্ষনিক এক অফিস কর্মচারী এসে জানান স্যার অফিসে নেই। এ ব্যাপারে তার বক্তব্য জানতে তার ব্যবহৃত মোবইল ফোনে একাধিকবার ফোন দেওয়া সত্ত্বেও তিনি ফোন রিসিভ করেন নি। বরেন্দ্র বার্তা/অপস

Close