মহানগরশিরোনাম

রাজশাহী ফাঁকা সড়কে সেনাবাহিনীর টহল ও জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজশাহীতে মাঠ পর্যায়ে টহল শুরু করেছে সেনাবাহিনীর পেট্রোল টিম। আজ বৃহস্পতিবার সকাল ৯টার পর থেকে প্রধান প্রধান সড়কগুলোতে টহল দিচ্ছেন সেনা সদস্যরা। এদিকে করোনা আতঙ্কে রাজশাহী শহর ফাঁকা হয়ে গেছে। শহরের প্রধান সড়কগুলো জনমানবশূন্য। শহরে ওষুধের ফার্মেসি, নিত্যপণ্যের দোকান, কাঁচাবাজার বাদে সকল ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, মার্কেট, বিপণিবিতান খাবার হোটেলসহ সব ধরনের দোকানপাট বন্ধ রয়েছে। এদিকে টহলের সময় সেনা সদস্যরা মাইকিংও করছেন। করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় সবাইকে দোকান-পাট ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার জন্য আহ্বান জানাচ্ছেন। বিশেষ প্রয়োজনে মাস্ক ছাড়া ঘর থেকে বাইরে না বের হওয়ার জন্য অনুরোধ করছেন। বিশেষ করে সরকারি নির্দেশনা মেনে ঘরেই অবস্থান করতে বলছেন তারা।
রাজশাহী জেলা প্রশাসক হামিদুল হক বলেন, করোনা পরিস্থিতিতে রাজশাহীতে অসাধু কোনো ব্যবসায়ী যেন নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম বাড়াতে না পারেন তার জন্যও কাজ করছেন সেনাবাহিনী। এছাড়া বিদেশ ফেরত মানুষজন হোম কোয়ারেন্টিনে থাকার জন্য স্বাস্থ্য বিভাগের প্রয়োজনীয় দিক নির্দেশনা মানছেন কি-না তাও তদারকি করছেন তারা। কোথাও যেন জনসমাগম না হয় সে বিষয়ে তারা নজরদারি করছেন। এর আগে ২৪ মার্চ মঙ্গলবার বিভাগীয় ও জেলা প্রশাসনের সঙ্গে সেনাবাহিনীর করণীয় নির্ধারণ ও কর্ম পরিকল্পনা গ্রহণে বৈঠক হয়। ওই বৈঠকের পর ২৫ মার্চ বুধবার থেকেই জেলা প্রশাসনের সঙ্গে কাজ শুরু করেন সেনা সদস্যরা।
এদিকে জেলা নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট শায়লা সাঈদ তন্বীর নেতৃত্বে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে নগরীর বিভিন্ন সাথে টহল দিকে দেখা যায়। তিনি পুলিশ সদস্যদের নিয়ে বিভিন্ন বাজার, জনসমাগম স্থান, রাস্তা ও বিভিন্ন মোড়ে যান। এছাড়ও কাঁচাবাজেরও তিনি নজরদারী করেন। ফার্মেসী, মুদি দোকান ও কাঁচা দোকানে কেউ যেন একেবারেই ঘনিষ্ট হয়ে গায়ের সাথে গা লাগিয়ে বাজার করতে না পারে সে বিষয়ে ব্যবস্থা নিচ্ছেন বলে জানান তিনি। সেইসাথে প্রয়োজনে কেউ বাহিরে আসলে অবশ্যই যেন মাস্ক পড়ে আসেন তার জন্য জনগণকে সচেতন করেন। এসময়ে কোর্ট বাজারের অনেক দোকানেই জটলা করে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য কিনতে দেখে তাদের হটিয়ে দেন। সেইসাথে দোকানদারদের সতর্ক করেন ম্যাজিষ্ট্রেট তন্বী। এছাড়াও ব্যবসায়ীরা পণ্যের মূল্য বেশী রাখছেন কিনা সেগুলোও তদারকী করছেন বলে জানান তিনি। রাজশাহী ফাঁকা সড়কে সেনাবাহিনীর টহল ও  জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা
শুধু আর্মি, ও প্রশাসনের পক্ষ থেকেই জনগণকে সচেতন নয় পুলিশকেও মোটর সাইকেল যোগে সরকারী নির্দেশনা মানার জন্য মাইকিং করতে দেখা যায়। বৃহস্পতিবার লক্ষ্মীপুর মোড়ে এস.আই মাহবুব তার ফোর্স নিয়ে মোটর সাইকেল যোগে এই মাইকিং করেন। এসময়ে মাহবুব বলেন, জনগণ বহির্বিশ্বের অবস্থা দেখে অনেক সচেতন হয়েছে। লকডাউন এর কারণে জনগণকে রাস্তায় অনেক কম দেখা যাচ্ছে। আবার প্রয়োজনে বাহিরে আসলেও দ্রুত প্রয়োজন সেড়ে ঘরে ফিরে যাচ্ছে বলে জানান তিনি। বরেন্দ্র বার্তা/ফকবা/অপস

Close