মহানগরশিরোনাম

রাজশাহী বিভাগে আগামী ৬-৭মাস কোনো মানুষ কাজ না করলেও না খেয়ে থাকবেনা: বিভাগীয় কমিশনার

করোনভাইরাসমুক্ত ভিডিও কনফারেন্সে

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহী বিভাগ এখন পর্যন্ত করোনামুক্ত- ভিডিও কনফারেন্সে প্রধানমন্ত্রীকে এমন তথ্যই জানান বিভাগীয় কমিশনার হুমায়ুন কবির খোন্দকার। তিনি বলেন, রাজশাহী বিভাগের আট জেলায় এখনো করোনা সংক্রমিত কোনো রোগীর সন্ধান পাওয়া যায়নি। সন্দেহভাজন ছয়জনের নমুনা সংগ্রহ করে আইইডিসিআর এ পাঠালে সেখান পরীক্ষায় রেজাল্ট নেভেটিভ এসেছে। এসময় প্রধানমন্ত্রী বিভাগীয় কমিশনারকে ধন্যবাদ জানান।
আজ মঙ্গলবার সকালে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনারের সঙ্গে কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এসময় নিজ কার্যালয় থেকে কথা বলেন রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার হুমায়ুন কবির খোন্দকার। তিনি প্রথমেই প্রথমেই প্রধানমন্ত্রীকে সুখবর দিতে গিয়ে বলেন রাজশাহী বিভাগের কোনো জেলাতেই করোনা রোগী পাওয়া যায়নি। ছয়জন সন্দেহভাজন রোগীর নমুনা আইইডিসির্আ এ পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছিল। কিন্তু সবকটিই নেগেটিভ এসেছে।
তিনি আরো বলেন, আগামীতে করোনা রোগী পাওয়া গেলে বা পরিস্থিতির প্রয়োজন হলে ১,৬৮০টি বেড প্রস্তুত আছে। পিপিই’র কোনো ঘাটতি নেই। এই বিভাগে পাঁচ হাজার পিপিই মজুদ আছে। দরিদ্র মানুষের খাদ্য সহায়তায় জিআর থেকে ৯২১মে টন চাল বিতরণ করা হয়েছে।বর্তমানে ২৪০০ মেট্রিকটন চাল মজুদ আছে। আর নগদ ৮১লাখ টাকা হাতে আছে। আগামী ৬-৭মাস কোনো মানুষ কাজ না করলেও খাদ্য সহায়তা প্রদান করা যাবে। এসময় প্রধানমন্ত্রী বিভাগীয় কমিশনারকে ধন্যবাদ জানান। সেইসাথে দরিদ্র মানুষের প্রয়োজনে আরো টাকা ও খাদ্যা পাঠাবেন বল জানান প্রধানমন্ত্রী।
পরে সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন ভিডিও কনফারেন্সে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে কথা বলেন। তিনি জানান, করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় লিফলেট ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণসহ সব ধরনের সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। প্রতিটি ওয়ার্ডে খাদ্য বিতরণ করা হচ্ছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে জনগণকে উদ্বুদ্ধ করা হচ্ছে। এসময়ে রাজশাহী রেঞ্জের ডি.আই.জি এ.কে.এম হাফিজ আক্তার বিপিএম ও আরএমপি পুলিশ কুমিশনার হুমায়ুন কবীরনহ অন্যান্য কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।
এদিকে, নিজ কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষ থেকে ভিডিও কনফারেন্সে কথা বলেন রাজশাহী জেলা প্রশাসক হামিদুল হক। তিনি প্রধানমন্ত্রীকে জানান, রাজশাহী জেলায় এখনো করোনা আক্রান্ত কোনো নেই। সন্দেহভাজন একজন রোগীর নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। কিন্তু করোনার কোনো উপসর্গ পাওয়া যায় নি। এছাড়া দরিদ্র মানুষ যাতে খাদ্য সংকটে না পড়ে এজন্য সব ধরনের ব্যবস্থা নিশ্চিত করা হয়েছে। পর্যাপ্ত খাবার মজুদ আছে। কোনো ব্যক্তি বিনা চিকিৎসায় মারা যাবে না। সব ধরনের চিকিৎসা ব্যবস্থা নিশ্চিত করা হয়ছে বলে জানান তিনি।
এসময়ে ডিসি কার্যালয়ে সদর আসনের সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য মেরাজ মোল্লা, রাজশাহী পুলিশ সুপার শহিদুল্লাহ, সিভিল সার্জন ডাক্তর এনামুল হক ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) শরিফুল হকসহ ডাক্তার, সামরিক বাহিনী ও পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন। বরেন্দ্র বার্তা/ফকবা/অপস

Close