জাতীয়শিরোনামসাহিত্য ও সংস্কৃতি

পহেলা বৈশাখের সব অনুষ্ঠান স্থগিত

মুক্তিযুদ্ধের পর এই প্রথম বন্ধ হলো ছায়ানটের বর্ষবরণ অনুষ্ঠান

বরেন্দ্র বার্তা ডেস্ক: করোনাভাইরাসের বিস্তাররোধে সরকার আসন্ন পহেলা বৈশাখের (১৪ এপ্রিল) সব ধরনের অনুষ্ঠান ও কার্যক্রম স্থগিত করেছে।
বুধবার (১ এপ্রিল) মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের মাঠ প্রশাসন সমন্বয় অধিশাখা উপসচিব মোহাম্মদ আব্দুল ওয়াদুদ চৌধুরী স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে এ সিদ্ধান্ত জানানো হয়।
সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ে পাঠানো এ চিঠিতে বলা হয়, করোনাভাইরাসের বিস্তাররোধকল্পে জনসমাগম পরিহার করার লক্ষ্যে আসন্ন ১ বৈশাখ ১৪২৭ বা এ সময়ে সব ধরনের অনুষ্ঠান/কার্যক্রম (তিন পার্বত্য জেলার ‘বৈসাবি’সহ) স্থগিত করার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হলো।
এর আগে মঙ্গলবার (৩১ মার্চ) গণভবনে এক অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নববর্ষের অনুষ্ঠান না করার অনুরোধ জানিয়ে বলেন, এবার পহেলা বৈশাখের প্রোগ্রাম হবে না। পরিস্থিতির কারণে আমাদের বড় বড় জমায়েত এড়িয়ে চলতে হবে।
অন্যদিকে মুক্তিযদ্ধের পর এই প্রথম বন্ধ হলো ছায়ানটের বর্ষবরণ অনুষ্ঠান। রমনা বটমূলে ছায়ানটের বর্ষবরণের প্রভাতি আয়োজন শুরু ১৯৬৭ সাল থেকে। এরপর ১৯৭১ সাল ছাড়া প্রতি বছরই অনুষ্ঠিত হয়েছে ছায়ানটের বর্ষবরণ অনুষ্ঠান। পহেলা বৈশাখের ছায়ানটের আয়োজনটিকে ঘিরে পুরো ঢাকা শহরের মানুষ একত্রিত হয় রমনায়।
২০০১ সালে ভয়ংকর সিরিজ বোমা হামলার পরের বছরও যে আয়োজন বন্ধ হয়নি। কিন্তু এবার করোনাভাইরাসের মোকাবিলা করতে স্থগিত করা হলো ছায়ানটের বর্ষবরণের আয়োজন।
পহেলা বৈশাখে (১৪ এপ্রিল) রমনা বটমূলে ছায়ানটের প্রভাতি আয়োজন ছাড়াও অনুষ্ঠিত হয় চারুকলা অনুষদের মঙ্গল শোভাযাত্রা। জানা গেছে, এবার শোভাযাত্রাও অনুষ্ঠিত হবে না। শুধু ঢাকার এই দুটি আয়োজন ছাড়াও দেশের কোথাও বর্ষবরণের অনুষ্ঠান বা বৈশাখী মেলার অনুমতি না দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।
৩১ মার্চ সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জনসমাগম না করে ডিজিটাল প্রক্রিয়ায় এবারের উৎসবটি পালনের নির্দেশ দেন। পরে ছায়ানট থেকেও এবারের আয়োজন স্থগিতের বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়। এবার ১৪২৬ বঙ্গাব্দ আসবে কোনো বড় আয়োজন ছাড়াই।
ছায়ানটের নির্বাহী সভাপতি সারওয়ার আলী বলেন, ‘করোনাভাইরাসের কারণে দেশের প্রতিটি মানুষ নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কিত। তাই রমনা বটমূলে এবার বর্ষবরণের অনুষ্ঠানটি না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি আমরা।’
সারওয়ার আলী জানান, বর্ষবরণ অনুষ্ঠানের বাজেট দিয়ে এই বছর ছায়ানট ত্রাণ বিতরণ করবে দুস্থদের মাঝে। এ বিষয়ে আজ চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে ছায়ানট। বরেন্দ্র বার্তা/অপস

Close