মহানগরশিরোনামস্বাস্থ্য বার্তা

রাজশাহীর করোনা ল্যাবে আরও ৯৪টি নমুনা, জেলায় চিকিৎসা দিতে প্রস্তুত ১০টি চিকিৎসা কেন্দ্র

 

ষ্টাফ রির্পোট: রাজশাহী মেডিকেল কলেজের (রামেক) ভাইরোলজি বিভাগে স্থাপিত করোনা ল্যাবে গত ১ এপ্রিল ল্যাবে পরীক্ষা শুরু হয়। বুধবার পর্যন্ত ২৪৩টি নমুনার পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। তবে এখনও পর্যন্ত রাজশাহী বিভাগের কোনো রোগীর নমুনায় করোনার উপস্থিতি পাওয়া যায়নি। বৃহস্পতিবারও ল্যাবে ৯৪ জন রোগীর নমুনা পরীক্ষা চলছে। করোনার চিকিৎসায় রামেক হাসপাতালে গঠিত চিকিৎসা কমিটির প্রধান ডা. আজিজুল হক আজাদ বৃহস্পতিবার নিয়মিত প্রেসব্রিফিংয়ে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
তিনি বলেন, নমুনা সংগ্রহের হার দিনদিন বাড়ছে। বেশি বেশি নমুনা পরীক্ষার মধ্যদিয়ে করোনা পরিস্থিতি সম্পর্কে জানা সম্ভব।
ডা. আজাদ বলেন, করোনা রোগী এখনো শনাক্ত না হলেও রাজশাহী ঝুঁকির বাইরে নয়। করোনাভাইরাস প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঘরে থাকতে হবে। জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বাড়ির বাইরে বের হওয়ার প্রয়োজন নেই। আর বাইরে বের হলে অবশ্যই মাস্ক পরতে হবে।
এদিকে কোনো রোগীর মাঝে জ্বর-সর্দি-কাশি ও শ্বাসকষ্টের মতো করোনার উপসর্গ দেখা দিলে তাকে রাজশাহীর সংক্রমক ব্যধি (আইডি) হাসপাতালে আইসোলেশনে রাখা হচ্ছে। সেখান থেকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজের (রামেক) ভাইরোলজি বিভাগে স্থাপিত করোনা ল্যাবে তার নমুনা পরীক্ষা করা হচ্ছে।
অন্যদিকে রাজশাহী জেলায় প্রস্তুত করা হয়েছে ১০টি চিকিৎসা কেন্দ্র। প্রস্তুত রয়েছেন চিকিৎসক এবং নার্সরাও। আরও দুটি বেসরকারি হাসপাতালকে করোনার চিকিৎসা কেন্দ্র হিসেবে প্রস্তুত করার প্রচেষ্টা চলছে। এছাড়া নগরীতে ফাকা পড়ে থাকা কয়েকটি ভবনের বিষয়েও চিন্তাভাবনা চলছে।
বৃহস্পতিবার জেলা প্রশাসনের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, কোভিড-১৯ রোগের চিকিৎসার জন্য জেলায় ১০টি চিকিৎসা কেন্দ্র প্রস্তুত রাখা হয়েছে। এসব চিকিৎসা কেন্দ্রে ৪৬২টি শয্যা রয়েছে। তবে করোনার রোগীদের জন্য প্রস্তুত রয়েছে ১১৫টি শয্যা। পর্যাপ্ত চিকিৎসক এবং নার্সও প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছেন।
জেলা প্রশাসন জানিয়েছে, ইতোমধ্যে চিকিৎসা সংশ্লিষ্টদের মাঝে ১ হাজার ১৭টি ব্যক্তিগত সুরক্ষা সামগ্রী (পিপিই) সরবরাহ করা হয়েছে। আরও ২ হাজার ২০টি পিপিই মজুদ রয়েছে। প্রয়োজন হলে আরও পিপিই আনা হবে। বরেন্দ্র বার্তা/অপস

Close