চারঘাটশিরোনাম-২

চারঘাটে কৃষকের সবজি কিনে কর্মহীন হতদরিদ্রদের বিতরণ করছেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী

 

মোঃ সজিব ইসলাম,চারঘাট: করোনাভাইরাসের কারণে সবজি বিক্রি করতে পারছে না চাষীরা। আর দরিদ্ররা ক্রয় করে খেতে পারছে না। এ জন্য ন্যায্য দামে সবজি ক্রয় করে দরিদ্রদের মাঝে বিতরণ করছেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম এমপি।

চাষিদের লোকসান ঠেকাতে সরাসরি ক্ষেত থেকে সবজি কিনছেন রাজশাহীর (চারঘাট-বাঘা) আসনের সংসদ সদস্য পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম। করোনার প্রভাবে চরম দুর্ভোগে পড়েছেন চারঘাট-বাঘার সবজি চাষিরা। পরিবহন ও পাইকার সংকটের কারণে দাম পাচ্ছেননা তারা। সবজির এই ভরা মৌসুমে উৎপাদিত পণ্য ক্ষেতেই নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।

এমন পরিস্থিতিতে কৃষকের লোকসান ঠেকাতে ন্যায্যমূল্যে সরাসরি মাঠ থেকে নিজ অর্থায়নে সবজি ক্রয় শুরু করেছেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী। ক্রয়কৃত সবজি পরবর্তীতে নিজ নির্বাচনী এলাকার (চারঘাট-বাঘা) কর্মহীন হতদরিদ্র পরিবারে বিতরণ করছেন।

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর এপিএস সিরাজুল ইসলাম জানান, গ্রীষ্মকালিন সবজির ভরা মৌসুম এখন। চারঘাট এবং বাঘার চরসহ এ অঞ্চলের কৃষকের একটি বৃহৎ অংশ সবজি চাষের সাথে সম্পৃক্ত। কিন্তু করোনাসঙ্কটে তারা এখন লোকসানের মুখোমুখি। এ পরিস্থিতিতে তাদের ন্যায্য মূল্য নিশ্চিত করতে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী নিজস্ব অর্থায়নে কৃষকের কাছ থেকে সবজি কিনছেন। ক্রয়কৃত সবজি চারঘাট-বাঘার কর্মহীন পরিবারের মাঝে বিতরণ করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, চারঘাট-বাঘার কিছু কৃষক করোনা সংকটে সবজির ন্যায্য মূল্য না পাওয়ার কথা প্রতিমন্ত্রীকে বলায় তিনি এলাকার সবজি কিনে এলাকায় বিতরণ করার সিদ্ধান্ত নেন। করোনা পরিস্থিতি যতদিন স্বাভাবিক না হবে, ততদিন এ ধারা অব্যাহত থাকবে বলে জানান তিনি।

চারঘাট উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা শামীম আহমেদ জানান, ১ম ধাপে, চারঘাট উপজেলার একটি পৌরসভা এবং ছয়টি ইউনিয়ের ০৫ হাজার ৬০০ পরিবার এবং ২য় ধামে ০৩ হাজার ১০০ পরিবার পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মহোদয়ের সবজি পাবে।

চারঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দা সামিরা বলেন, মরণব্যাধী করোনা ভাইরাসের প্রভাবে লকডাউন ঘোষণার পর থেকে মানুষ বেকার জীবন-যাপন করছে। সরকারিভাবে কর্মহীন এসব মানুষদের সহায়তা দেয়া হচ্ছে। পাশাপাশি পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মহোদয়ের পক্ষ থেকে সবজি বিতরন করা হচ্ছে। তিনি নিজস্ব অর্থায়নে চাষিদের সবজি কিনে সাধারন মানুষের মাঝে বিতরন করছেন। এতে সবজি চাষি এবং কর্মহীন পরিবার সকলেই সুফল পাচ্ছে। বরেন্দ্র বার্তা/অপস

Close