দূর্গাপুরশিরোনাম

দুর্গাপুরে করোনা রোগী শনাক্ত

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজশাহীর দুর্গাপুরেও শনাক্ত হলো করোনাভাইরাসের রুগী। আক্রান্ত ব্যক্তির বাড়ি উপজেলার ভাঙ্গিরপাড়া গ্রামে। তিনি নারায়ণগঞ্জে ঝালমুড়ি বিক্রি করতেন। গত ২৭ এপ্রিল তিনি গ্রামে আসেন। এরপর তার হোম কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করে ২৮ এপ্রিল নমুনা সংগ্রহ করা হয়।
রাজশাহী মেডিকেল কলেজের (রামেক) করোনা ল্যাব সূত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার মোট ৯৪ জনের নমুনা পরীক্ষায় দেয়া হয়। এর মধ্যে ত্রুটি থাকায় ৯টির রিপোর্ট পাওয়া যায়নি। আর ৮৪টির রিপোর্ট নেগেটিভ। শুধু দুর্গাপুর উপজেলার এই ব্যক্তির নমুনায় করোনা শনাক্ত হয়।
উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আসাদুজ্জামান জানান, এ দিন দুর্গপুরের ২৯ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। বাকি ২৮টি রিপোর্ট এসেছে নেগেটিভ। শনাক্ত হওয়া ব্যক্তি এখন বাড়িতেই থাকবেন। সেখানেই চিকিৎসা চলবে। তার বাড়ি লকডাউন করা হচ্ছে। আক্রান্ত ব্যক্তির বয়স আনুমানিক ৪০ বছর। তিনি নারায়ণগঞ্জে ঝালমুড়ি বিক্রি করতেন আর তার স্ত্রী কাজ করেন তৈরি পোশাক কারখানায়।
এদিকে রাজশাহী জেলায় মোট ১৪ জন করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হলেন। এদের মধ্যে একজন মারা গেছেন। তার বাড়ি জেলার বাঘা উপজেলায়। গত ২৬ এপ্রিল রাজশাহীর সংক্রমক ব্যাধি (আইডি) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ৮০ বছর বয়সী ওই বৃদ্ধ মারা যান। তার করোনা সংক্রমণের উৎস এখনও পাওয়া যায়নি। আর মোহনপুরের আরেক বৃদ্ধেরও সংক্রমণের উৎস জানা যায়নি। আক্রান্ত অন্যরা সবাই ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ ও গাজীপুর থেকে রাজশাহী এসেছেন।
রাজশাহীর পুঠিয়া উপজেলায় গত ১২ এপ্রিল প্রথম কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত হয়। এরপর গত ২০ এপ্রিল পর্যন্ত মোট আটজন করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হন। ২৮ এপ্রিল একদিনেই চারজন শনাক্ত হন। এতে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ায় ১২ জনে। এই ১২ জনের বাড়ি পুঠিয়া, বাগমারা, বাঘা, মোহনপুর, তানোর ও পবা উপজেলায়। সর্বশেষ দুর্গাপুর উপজেলাতেও করোনা শনাক্ত হলো।

তবে রাজশাহী মহানগরী এবং জেলার গোদাগাড়ী ও চারঘাট উপজেলায় করোনা আক্রান্ত কেউ শনাক্ত হননি। বরেন্দ্র বার্তা/অপস

Close