মহানগরশিরোনাম-২

জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামানের মৃত্যুতে এমপি বাদশা ও মেয়র লিটনের শোক

 

নিজস্ব প্রতিবেদক : জাতীয় অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামানের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক ও রাজশাহী সদর আসনের সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা ও রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন।
বৃহস্পতিবার বিকেলে গণমাধ্যমে পাঠানো এক শোকবার্তায় সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা বলেন, অধ্যাপক আনিসুজ্জামান তার বুদ্ধিবৃত্তিক অবস্থান, প্রগতিশীল ভাবনা ও চিন্তক হিসেবে দেশে-বিদেশে সম্মানিত ছিলেন। বাংলাদেশের জন্য অনেক সম্মান বয়ে এনেছেন তিনি। তাঁর মৃত্যুতে এদেশের মুক্তিবুদ্ধির চর্চার একটি অধ্যায়ের অবসান ঘটলো। জাতি তাঁকে শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করবে। এ সময় তিনি শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।
অন্যদিকে রাসিক মেয়র লিটন বৃহস্পতিবার এক শোক বার্তায় মরহুমের আত্মার মাগফিরাত কামনা ও তাঁর শোক সন্তোপ্ত পরিবারবর্গের প্রতি গভীর সমবেদনাও জ্ঞাপন করেন মেয়র।
শোক বার্তায় মেয়র বলেন, সমাজ, সংস্কৃতি ও রাজনীতি ভাবনার ক্ষেত্রে চেতনার বাতিঘর ছিলেন অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামান। তাঁর বুদ্ধিবৃত্তিক অবস্থান, প্রগতিশীল ভাবনা ও চিন্তক হিসেবে দেশে-বিদেশে সম্মানিত ছিলেন তিনি। প্রজ্ঞা ও শুদ্ধ চেতনায় দীপ্ত এ মানুষটির চলে যাওয়া দেশের জন্য এক অপূরণীয় ক্ষতি। জাতি তাঁকে চিরকাল শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করবে।

আজ বৃহস্পতিবার সকালে তাঁর জ্বর আসে। বুকে ব্যাথাও বাড়ে। চিকিৎসকরা তাকে সিসিসি (ক্রিটিকাল কেয়ার সেন্টার) এ স্থানান্তরিত করার সিদ্ধান্ত নেন। সকালেই এসব তথ্য দিয়েছিলেন তাঁর ছেলে। রক্তে সংক্রমণের সঙ্গে পূর্বের নানা জটিলতা নিয়ে গত ২৭ এপ্রিল ৮৩ বছর বয়সী এই অধ্যাপককে রাজধানীর ইউনিভার্সেল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ৯ মে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
বরেন্দ্র বার্তা/অপস

Close