চাঁপাই নবাবগঞ্জশিরোনাম-২

বিষধর রাসেল ভাইপার ধরে ঝুলিয়ে রাখলেন কৃষক

বরেন্দ্র বার্তা ডেস্ক: পৃথিবীর সবচেয়ে বিষধর সাপগুলোর মধ্যে একটি রাসেল ভাইপার। রাজশাহী অঞ্চলে সাপটি চন্দ্রবোড়া নামেও পরিচিত। গেল কয়েকবছরে বরেন্দ্র অঞ্চলে সাপটির উপদ্রব দেখা দিয়েছে। বিশেষ করে ধান কাটার মৌসুমে মাঠে মাঠে দেখা মেলে ভয়ঙ্কর এই বিষধর সাপটি। চাঁপাইনবাবগঞ্জে এমনই ধানের ক্ষেত থেকে একটি রাসেল ভাইপার ধরার পর বস্তায় ভরে গাছে ঝুলিয়ে রেখেছেন এক কৃষক।

শনিবার (১৬ মে) বেলা ১১টার দিকে চাঁপাইনবাবগঞ্জের আমনূরা জামতলা এলাকার একটি ধান ক্ষেত থেকে সাপটিকে ধরা হয়। সেখানকার মনামিনা কৃষি খামারের মালিক মতিউর রহমান সাপটি ধরেছেন। এর পর মনামিনা কৃষি খামারের একটি আম গাছে ঝুলিয়ে রেখেছেন সাপটিকে। এর ছবিও পোস্ট করেছেন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে। ক্যাপসনে লিখেছেন, করোনার মধ্যে আতঙ্কের আরেক নাম রাসেল ভাইপার। সাপটি অক্ষত অবস্থায় বস্তাবন্দি করে রাখা হয়েছে। গবেষণার প্রয়োজন।

যোগাযোগ করা হলে মতিউর রহমান বলেন, তার সাপ ধরার অভিজ্ঞতা আছে। সাধারণ একটি গাছের ডাল দিয়েই তিনি সাপ ধরতে পারেন। শনিবার সকালে মাঠে ধান তুলতে গিয়ে গিয়ে রাসেল ভাইপার দেখেই কৃষকরা তাকে ফোন দেন। তিনি গিয়ে সাপটিকে ধরে বস্তায় ঢোকান। এখন সাপটিকে কেউ গবেষণার জন্য নিয়ে গেলে দিয়ে দেবেন। সে জন্যই ছবিটি ফেসবুকে পোস্ট করেছেন।

এর আগেও একটি রাসেল ভাইপার ধরেছিলেন কৃষক মতিউর রহমান। সেটি তিনি রাজশাহীর পবা উপজেলার ‘স্নেইক রেসকিউ অ্যান্ড স্টাডি’ নামের একটি ক্লাবকে দিয়েছিলেন। বোরহান বিশ্বাস নামের এক যুবক ক্লাবটি প্রতিষ্ঠা করেছেন। তার সাপের খামারও আছে। এবার তার সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারছেন না।

মতিউর রহমান বলেন, বোরহান বিশ্বাসের মোবাইল নম্বর বন্ধ পাওয়া যাচ্ছে। ফেসবুকে বার্তা পাঠিয়েও সাড়া পাওয়া যাচ্ছে না। তাই ছবিটি ফেসবুকে দিয়েছেন যেন এটি দেখে কেউ সাপটিকে গবেষণার জন্য নিয়ে যান। তা না হলে হয়তো বিষধর এই সাপটিকে মেরে ফেলতে হবে।
বরেন্দ্র বার্তা/অপস
মুত্র: সোনালী সংবাদ

Close