মহানগরশিরোনাম

রাজশাহীর মতিহারে মুদি দোকান ও অটো ভাঙ্গচুর, থানায় মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজশাহী মহানগরীর ২৮নং ওয়ার্ডের মতিহার থানাধীন ধরমপুর পূর্বপাড়ার সুরাফানের মোড় সংলগ্ন স্থানে মুদি দোকান ও অটো ভাঙ্গচুর করেছে এক মাদক ব্যবসায়ী। সেইসাথে দোকানের মালামাল নষ্ট এবং ৩৩হাজার টাকা লুট করে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ নিয়ে রোববার দোষী ব্যক্তিদের নামে মতিহার থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে বলে জানান দোকান ও অটোর মালিক সামাউল। তিনি বলেন, বিগত ছয়মাস পূর্বে এই এলাকার শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী সজলকে মতিহার থানা পুলিশ মাদকসহ গ্রেফতার করেন। মাদকসহ গ্রেফতারের বিষয়ে সজল সে সময় থেকে তাকে দায়ী করে আসছেন। কিন্তু এ বিষয়ে তিনি কিছুই জানতেন না বলে জানান তিনি।

রাজশাহীর মতিহারে মুদি দোকান ও অটো ভাঙ্গচুর, থানায় মামলা

সামাউল বলেন, এ নিয়ে সজল সে সময় থেকে তাকে খুন ও বিভিন্ন ধরনের হুমকী প্রদান করে আসছেন। শুধু তাকেই নয় তার সন্তানদের ক্ষতি করাও হুমকি প্রদান করেন বলে জানান তিনি। এছাড়াও বাড়ির পিছনে তার একটি পরিত্যক্ত ঘরে বসে সজল মাদক সেবন ও ব্যবসা করেন। নিষেধ করলেও ভয় দেখিয়ে সেই ঘর দখল করে ব্যবসা চলমান রেখেছে বলে জানান সামাউল। কিন্তু কোন কিছু বুঝে ওঠার পূর্বেই রোববার রাতে হঠাৎ করে তার দোকানে হামলা চালিয়ে মালামাল নষ্ট এবং ১০হাজার টাকা নিয়ে চলে যায় বলে জানান তিনি। চাঁন রাত হওয়ায় তিনি সে সময়ে দোকনে ব্যবসা করছিলেন। এ নিয়ে মতিহার থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করলে সজল ক্ষীপ্ত হয়ে তার বাবা সেলিমকে সঙ্গে নিয়ে এসে পরের দিন দোকানে পুনরায় হামলা চালায় বলে জানান সামাউল ।

সামাউলের স্ত্রী নিলুফা বলেন, আজ সোমবার দুপুর ১২টার দিকে তিনি দোকানে বসে ব্যবসা করছিলেন। এসময় সজল ও তার বাবা সেলিম হঠাৎ করে এসে দোকানে ধারালো হাঁসুয়া দিয়ে এলোপাথারী কোপাতে থাকে। অল্পের জন্য তার গলায় হাঁসুয়ার আঘাত লাগেনি বলে জানান তিনি। মূলত তাকে মেরে ফেলার জন্যই তারা হাঁসুদা দিয়ে সাটারে ও দোকানের মধ্যে কোপাতে থাকে। সেইসাথে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকে।

এসময়ে তিনি প্রান ভয়ে পালিয়ে গেলে দোকানে থাকা আরো ২৩ হাজার টাকা নিয়ে যায় এবং মালামাল নষ্ট করে। শুধু দোকানের ক্ষতিই তারা করেনি অন্য গেটের মধ্যে থাকা একটি অটো ভাঙচুর ও সেখানকারও সাটার হাঁসুয়া দিয়ে কুপিয়েছে বলে জানান সামাউল। এ নিয়ে তারা আতঙ্কের মধ্যে দিন কাটাচ্ছেন। সামাউল ও স্ত্রী নিলুফা এই মাদক ব্যবসায়ী ও সন্ত্রাসী সজল ও তার বাবা সেলিমকে দ্রুত গ্রেফতার করে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী করেন।

এ বিষয়ে মতিহার থানায় গেলে থানার অফিসার ইনচার্জ এস.এম মাসুদ পারভেজ বলেন, থানায় সজল ও তার বাবার বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ হয়েছে। এ নিয়ে আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। দ্রুত সময়ে মধ্যে আসামীদের গ্রেফতার করে আইনী ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা।
বরেন্দ্র বার্তা/ ফকবা/ নাসি

Close