বাগমারাশিরোনাম

সাবেক স্ত্রীর বিরুদ্ধে এমপি এনামুলের মামলা

বরেন্দ্র বার্তা ডেস্ক: ফেসবুকে একের পর এক আপত্তিকর পোস্ট এবং কোটি টাকা চাঁদা দাবির অভিযোগে রাজশাহী-৪ (বাগমারা) আসনের এমপি এনামুল হকের তালাকপ্রাপ্ত স্ত্রী আয়েশা আক্তার লিজার বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

এমপি এনামুলের ব্যক্তিগত সহকারী বাগমারা উপজেলা পরিষদের ভাইস-চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান আসাদ তথ্যপ্রযুক্তি আইনে এ মামলা দায়ের করেছেন।

বাগমারা থানার ওসি আতাউর রহমান জানান, বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ১২টার পর মামলাটি (থানার মামলা নম্বর ৬, তারিখ-৫ জুন, ২০২০) দায়ের করা হয়েছে। মামলার আসামি এমপি এনামুল হকের তালাকপ্রাপ্ত স্ত্রী আয়েশা আক্তার লিজা। পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে। পাশাপাশি এ মামলার আসামি লিজাকে গ্রেফতারের চেষ্টা করছে।

মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে, আয়েশা আক্তার লিজাকে তালাক দেয়ার পর তিনি তার সাবেক স্বামী এমপি এনামুল হকের কাছে নিজের ব্যাংক লোনের ১ কোটি টাকা পরিশোধের জন্য চাঁদা দাবি করেন। চাঁদা না দেয়ায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছবি দিয়ে এমপি এনামুলের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালিয়ে তার সুনাম ক্ষুণ্ণ করেছেন।

মামলা প্রসঙ্গে আয়েশা আক্তার লিজা বলেন, আমাকে পুলিশ দিয়ে গ্রেফতার এবং মেরে ফেলার হুমকি দেয়া হচ্ছিল। এর অংশহিসেবেই আমাকে দুর্বল করতে আমার নামে ‘মিথ্যা’ মামলা দেয়া হয়েছে। আইনগতভাবে আমি এখনও এমপি এনামুল হকের বৈধ স্ত্রী। আমাকে তালাকের প্রথম নোটিশ দেয়া হয়েছে বলে শুনেছি। এখনও নোটিশ হাতে পাইনি। পরপর তিনটি নোটিশ তিন মাসে আসার পর তালাক চূড়ান্ত হয়। আমাকে তালাক দেয়ার বিষয়টি শুনতে পেয়ে আমি ন্যায়বিচার চেয়ে আমার স্বামীর সঙ্গে ফেসবুকে ছবি দিয়েছি। এতে আমার স্বামীর মানসম্মান নষ্ট হওয়ার কথা নয়। যেহেতু আমরা স্বামী-স্ত্রী।

এ দিকে আয়েশা আক্তার লিজা এমপি এনামুল হকের বিরুদ্ধে বিয়ের নামে প্রতারণা ও ভ্রুণ হত্যার অভিযোগ এনে বাংলাদেশ মহিলা আইনজীবী সমিতি বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছেন।

এ ব্যাপারে মহিলা আইনজীবী সমিতির রাজশাহী বিভাগীয় প্রধান দিল সেতারা চুনি বলেন, লিজা আমাদের কাছে অভিযোগ করেছেন। আমরা তার অভিযোগের কাগজপত্রগুলো পর্যালোচনা করে দেখছি।

অপরদিকে মামলার বাদী এমপি এনামুল হকের পিএস আসাদুজ্জামান আসাদ বলেন, ২০১৮ সালে বিয়ের পর থেকেই লিজা এমপি এনামুল হকের সঙ্গে বিভিন্ন ইস্যুতে প্রতারণা করে আসছিলেন। এ কারণে বাধ্য হয়ে গত এপ্রিলে লিজাকে তালাক দেন তিনি। ফলে তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে এমপি এনামুলের বিরুদ্ধে ফেসবুকে একের পর এক আপত্তিকর পোস্ট দিচ্ছিলেন।

তিনি বলেন, এনামুল হক রাজশাহী-৪ আসনে পর পর তিনবার নির্বাচিত এমপি। এলাকায় তিনি ব্যাপক জনপ্রিয়। করোনা দুর্যোগকালীন এলাকার মানুষের বিপদে সব সময় পাশে থাকেন তিনি। একজন মানুষ বিয়ে করতেই পারেন। তবে বিয়ে এবং তালাককে ইস্যু করে কেউ কাউকে জিম্মি করতে পারেন না। কিন্তু আয়েশা আক্তার লিজা এমপিকে জিম্মি করার চেষ্টা করছিলেন। তাই বাধ্য হয়ে তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছি।

এ বিষয়ে বক্তব্যের জন্য এমনি এনামুল হককে দুবার ফোন দিলেও তিনি ফোন ধরেননি। তবে এর আগে তিনি বলেছিলেন, লিজা ব্লাকমেইল করে তাকে বিয়ে করেছেন। বিয়ের পর তার (এনামুল) টাকাতেই লিজা রাজশাহী মহানগরীতে পাঁচতলা বাড়ি নির্মাণসহ অঢেল সম্পদের মালিক হয়েছেন।
বরেন্দ্র বার্তা/অপস
সুত্র: যুগান্তর

Close