পাবনাশিরোনাম-২

পাবনায় অনলাইন প্লাটফর্মে ডিজিটাল মেলা ২০২০ উদযাপনের উদ্যোগ

 

শফিক আল কামাল, পাবনা: বর্তমান সরকারের অন্যতম নির্বাচনী ইশতেহার ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণের লক্ষ্যে আইসিটি’র সর্বোত্তম ব্যবহার নিশ্চিতকল্পে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ নানামূখী কার্যক্রম পরিচালনায় নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। তারই অংশ হিসেবে তথ্য ও যোগাযোগ বিভাগের উদ্যোগে, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি অধিদপ্তর ও এটুআই-এর সহযোগিতায় বর্তমান করোনা সংক্রমণ পরিস্থিতি বিবেচনায় ৬৪টি জেলার ডিজিটাল কার্যক্রমকে জাতীয় তথ্য বাতায়নের মাধ্যমে নাগরিকদের কাছে উপস্থাপনের লক্ষ্যে “অনলাইন প্লাটফর্মে ডিজিটাল মেলা ২০২০” আয়োজনের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়। সারাদেশের ন্যায় পাবনা জেলাতেও ২৮ থেকে ৩০ জুন, ২০২০ তারিখ “অনলাইন প্লাটফর্মে ডিজিটাল মেলা ২০২০” উদযাপিত হবে।
জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের সকল সরকারি অফিসকে সাথে নিয়ে জাতীয় তথ্য বাতায়নের নিজস্ব জেলার মেলা সেকশনে সচিত্র তথ্য-উপাত্ত, ছবি, ভিডিও এবং প্রয়োজনীয় কার্যক্রম উপস্থাপনা করার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। জাতীয় তথ্য বাতায়ন এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের পোর্টালে ডিজিটালমেলা ২০২০ সম্পর্কিত একটি মেন্যুবারে ক্লিক করে যেকোনো নাগরিক জেলার নামের উপর ক্লিক করে ঐ জেলার ডিজিটাল কার্যক্রম সম্পর্কে জানতে পারবেন। পাশাপাশি পাবনা জেলার পোর্টাল িি.িঢ়ধনহধ.মড়া.নফ তে “ডিজিটাল মেলা ২০২০” নামে একটি মেন্যুবার সংযুক্ত করা হয়েছে যার মাধ্যমে নাগরিকগণ জেলার ডিজিটাল কার্যক্রম সম্পর্কে অবহিত হতে পারবেন। এছাড়াও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপনের অংশ হিসেবে এ অনলাইন প্লাটফর্মে “মুজিব কর্নার” নামে একটি প্যাভিলিয়ন তৈরী করা হয়েছে। ডিজিটাল মেলা ২০২০ উপলক্ষ্যে আগামী ০১ জুলাই, ২০২০ তারিখ ‘‘কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে প্রযুক্তিই হাতিয়ার’’ বিষয়ে একটি অনলাইন সেমিনারের আয়োজন করা হবে।
এবারের মেলায় বিষয়ভিত্তিক অনলাইন প্যাভিলিয়নের মাধ্যমে বিভিন্ন কার্যক্রমকে প্রদর্শন করা হবে।
প্যাভিলিয়ন-১- ই-সেবাঃ
বিভিন্ন খাতে (ডিজিটাল প্রশাসন, কৃষি, মৎস্য ও প্রাণি সম্পদ, স্বাস্থ্য, যোগাযোগ, ভূমি-ই-পর্চা, ও ই-মিউটেশন, বিআরটিএ, পোস্টাল বিভাগের সার্ভিসসমূহ, ই-পাসপোর্ট, পরিবেশ এবং অন্যান্য সেবা খাত) সরকারি সেবার ডিজিটাল পদ্ধতির বা ই-সেবার সচিত্র তথ্য-উপাত্ত আপলোডের মাধ্যমে প্রদর্শনের ব্যবস্থা করা হবে।
প্যাভিলিয়ন-২- ডিজিটাল সেন্টার, পোস্ট ই-সেন্টার, এজেন্ট ব্যাংকিং, রুরাল ই-কমার্স ও অন্যান্য প্রতিষ্ঠানসমূহঃ
ডিজিটাল সেন্টার এবং পোস্ট ই-সেন্টারের মাধ্যমে জনগণের দোরগোড়ায় সেবা পৌঁছে দেয়ার পুরো প্রক্রিয়াকে এ অনলাইন প্যাভিলিয়নের মাধ্যমে উপস্থাপন করা হবে। ডিজিটাল সেন্টার এবং পোস্ট ই-সেন্টার থেকে যে সকল সেবা দেয়া হয় তার তালিকা এবং সেবামূল্যের তালিকা এ প্যাভিলিয়নের মাধ্যমে জানা যাবে। এজেন্ট ব্যাংকিং এবং ই-কমার্স সেবাকে জনগণের নিকট সহজভাবে উপস্থাপনের মাধ্যমে এ সেবা গ্রহণে উদ্বুদ্ধ করা হবে। সরকারি-বেসরকারি যত ধরনের সেবার আবেদন অনলাইনে করার সুযোগ রয়েছে, সেসব সম্পর্কে তথ্য প্রদান করা হবে।
প্যাভিলিয়িন-৩- শিক্ষা ও কর্মসংস্থানঃ
স্থানীয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের উদ্ভাবনী উদ্যোগসমূহ (বিদ্যালয় কার্যক্রম অটোমেশন, অভিভাবকদের নিকট এসএমএস প্রদান, অনলাইনে শিক্ষার্থীদের বেতন সংগ্রহ, শিখন-শেখানো কার্যক্রমে অনলাইন পদ্ধতির ব্যবহার ইত্যাদি) প্রদর্শনের ব্যবস্থা করা হবে। যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর, বিসিক, বিএমইটি, কারিগরী শিক্ষা অধিদপ্তর (পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট, টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজ) সহ সরকারের বিভিন্ন দক্ষতা উন্নয়নমূলক প্রতিষ্ঠানের “দক্ষতা ও কর্মসংস্থান” বিষয়ক ইনোভেটিভ উদ্যোগসমূহ যুব সমাজসহ জনসাধারণকে জানানো হবে।
প্যাভিলিয়িন-৪- বিভিন্ন স্টার্টআপ ও তরুণ উদ্ভাবকদের উদ্যোগ প্রদর্শনঃ
স্থানীয় পর্যায়ের বিভিন্ন উদ্যোগ, বিভিন্ন স্টার্টআপের বিবরণ, ছবি এবং ভিডিও প্রদর্শন করা হবে। স্থানীয় শিক্ষার্থী এবং তরুণ উদ্ভাবকদের উদ্ভাবনী প্রকল্প উপস্থাপন করা হবে। স্থানীয় পর্যায়ে নাগরিক সমস্যা সমাধান নিয়ে যে কোন উদ্যোগ কিংবা প্রোটোটাইপ প্রদর্শন করা হবে। সংশ্লিষ্ট শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণ নিশ্চিতকরণের লক্ষে প্রয়োজনীয় সকল পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

সবার স্বতস্ফুর্ত অংশগ্রহণে “অনলাইন প্লাটফর্মে ডিজিটাল মেলা ২০২০” সাধারণ মানুষের আশা আকাঙ্খার প্রতিফলন ঘটবে এবং কল্যাণে অগ্রনী ভূমিকা পালন করবে প্রত্যাশা সবার।
বরেন্দ্র বার্তা/অপস

Close