মহানগরশিরোনাম

রাজশাহীতে করোনায় ১ ও উপসর্গ নিয়ে ২ জনের মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজশাহীতে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত পুলিশের এক এএসআই (সহকারী উপ-পরিদর্শক) , করোনা উপসর্গ নিয়ে সাবেক ব্যাংক কর্মকর্তা ও রবির এক ল্যাব সহকারীর মৃত্যু মৃত্যু হয়েছে।
মৃতরা হলেন পুলিশের এএসআইয়ের আবুল কালাম আজাদ (৩৫), সাবেক ব্যাংক কর্মকর্তার নাম মীর শওকত আলী (৬৩) ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ল্যাব সহকারী মাসুদ রানা (৪৫)।
এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন রামেক হাসপাতালের উপপরিচালক ডা. সাইফুল ফেরদৌস ।
তিনি জানান, পুলিশের এএসআই আবুল কালাম আজাদ রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুধবার দুপুর ১টার দিকে তিনি মারা যান।
এএসআই আবুল কালাম আজাদের মৃত্যুর বিষয়টি জেলার পুলিশ সুপার (এসপি) মো. শহিদুল্লাহকে অবহিত করা হয়েছে। খবর দেয়া হয়েছে কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনকেও। তারা পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন।
জেলা পুলিশের মুখপাত্র ইফতেখায়ের আলম জানান, এএসআই আবুল কালাম আজাদ জেলা জজ আদালতে কর্মরত ছিলেন। করোনার উপসর্গ দেখা দেয়ায় গত ২২ জুন তার নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এতে তার শরীরে করোনা শনাক্ত হয়। এরপর বিভাগীয় পুলিশ হাসপাতালে রেখে তার চিকিৎসা চলছিল।
সেখানে তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় ২৫ জুন রামেক হাসপাতালের আইসিইউতে নেয়া হয়েছিল। আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা গেলেন।
এএসআই আবুল কালামের গ্রামের বাড়ি বগুড়ার শেরপুর উপজেলায়। তিনি স্ত্রীকে নিয়ে রাজশাহী মহানগরীর তেরোখাদিয়া এলাকায় ভাড়া থাকতেন। তার ছয় বছর এবং ছয় মাসের দুই সন্তান রয়েছে।

এদিকে উপসর্গ নিয়ে মারা যা্ওয়া সাবেক ব্যাংক কর্মকর্তা মীর শওকত আলী অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেডের সিনিয়র প্রিন্সিপাল অফিসার ছিলেন। কয়েক বছর আগে অবসর গ্রহণ করেন।
রাজশাহী মহানগরীর হোসনীগঞ্জ এলাকায় তার বাড়ি। রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের ৩০ নম্বর ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুধবার (০১ জুলাই) দুপুর ১টার দিকে তিনি মারা যান।
রামেক হাসপাতালের উপপরিচালক ডা. সাইফুল ফেরদৌস জানান, জ্বর ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে সকাল ১০টার দিকে মীর শওকত আলীকে হাসপাতালের জরুরি বিভাগে আনা হয়। এরপর তাকে করোনার সন্দেহভাজন রোগিদের জন্য নির্ধারিত ওয়ার্ডে রাখা হয়। সেখানেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় দুপুরে তিনি মারা যান।
তিনি বলেন, মরদেহ থেকে নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। তিনি করোনা আক্রান্ত ছিলেন কিনা তা নমুনা পরীক্ষার পরই বলা যাবে।
মীর শওকত আলীর বাবার নাম মৃত আফসার আলী। শওকতের বড় ভাই মীর লায়েক আলী জানান, স্বাস্থ্যবিধি মেনে কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের স্বেচ্ছাসেবকরাু তার ভাইয়ের মৃতদেহ দাফনের ব্যবস্থা করছে।
অন্যদিকে, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ল্যাব সহকারী মাসুদ রানা রাজশাহী মহানগরীর বালিয়াপুকুর এলাকার গাজিউর রহমানের ছেলে। মাসুদ রানা রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগের ল্যাব সহকারী ছিলেন। রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ বুধবার ভোরে তিনি মারা যান।
রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের উপপরিচালক ডা. সাইফুল ফেরদৌস বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
তিনি জানান, মাসুদ রানার করোনার উপসর্গ ছিলো। কিন্তু নমুনা পরীক্ষার আগেই তিনি মারা গেছেন। মৃত্যুর পর মরদেহ থেকে নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। তিনি করোনা আক্রান্ত ছিলেন কিনা তা পরীক্ষার পরই বলা যাবে।
মাসুদ রানার মরদেহ স্বাস্থ্যবিধি মেনে দাফনের জন্য কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি।

বরেন্দ্র বার্তা/অপস

Close