চারঘাটশিরোনাম-২

চারঘাটের ‘লকডাউন’ বাড়িগুলোর দিন কাটছে কেমন ?

 

মো: সজিব ইসলাম, চারঘাট: চলমান করোনা মহামারিতে ‘লকডাউন’ শব্দের সঙ্গে কমবেশি সবাই পরিচিত। করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে শনাক্ত হওয়া রোগীর বাড়িতে অবাধ যাতায়াত বন্ধ করতে সংশ্লিষ্ট বাড়িগুলো লকডাউন করা হয়।

লকডাউন বাড়ির সদস্যরাও যাতে অন্যের সংস্পর্শে না যেতে পারেন এজন্য প্রশাসনের উদ্যোগে এ ধরনের পদক্ষেপ নেয়া হয়। এক্ষেত্রে ‘সাবধান, বাড়িটি লকডাউন’-এমন সাইনবোর্ড টাঙিয়ে অন্যদের সতর্ক করে প্রশাসন। যদিও লকডাউন কারো কাছে বিব্রতকর, কারো কাছে কষ্টের।

রাজশাহীর চারঘাট উপজেলায় লকডাউন বাড়ির সংখ্যা প্রায় ২৮টি। এসব বাড়ির সদস্যরা সাধারণত: বাড়ির বাইরে বের হননা। প্রশাসন ও স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষ থেকে তাদের ১৪-২১দিন কোয়ারেন্টিনে থাকার নির্দেশনা দেয়া হয়। লকডাউন হওয়া বাড়িতে খাবার-ফলমূল এবং অন্যান্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিদের পক্ষ থেকে সরবরাহ করা হয়।

সরেজমিন জানা যায়, চারঘাটের লকডাউন হওয়া বাড়িগুলোর দিনরাত্রি। কেমন কাটে তাদের দৈনন্দিন জীবন। একাধিক বাড়ির সদস্যরা জানান, প্রশাসনের পক্ষ থেকে লকডাউন ঘোষণার পর তাদের বাড়িতে এবাদত-বন্দেগি বেড়েছে। করোনা শনাক্ত ব্যক্তিকে একটি আলাদা কক্ষে রেখে আইসোলেশন নিশ্চিত করা হয়। চিনি কিংবা মিষ্টি জাতীয় খাবার কমিয়ে পুষ্টিকর খাবারের প্রবণতা বাড়ে। আত্মীয়স্বজনরা ফোনে খোঁজ নেন কোন সমস্যা হচ্ছে কিনা।
বরেন্দ্র বার্তা/অপস

Close