মহানগরশিরোনাম-২

নগরীর ভাটাপাড়ায় শহীদ কামাল খা’র বাড়ি পূণঃনির্মানে বাধা, কাজ বন্ধ

নিজস্ব প্রতিবেদক: নগরীর লক্ষ্মীপুর ভাটাপাড়া কামাল খাঁ মোড়ের নিকটবর্তী রোডের পার্শে স্থানীয় এক নেতা কর্তৃক বাড়ি কাজ বন্ধ করে দেয়ার অভিযোগ করেছেন শহীদ কামাল উদ্দিন খান এর ছেলে ব্যাংক কর্মকর্তা ইকবাল হোসেন খান।
তিনি বলেন, তার বাবাকে ১৯৭১ সালের ১৪ এপ্রিল পাক হানাদার বাহিনী নির্মমভাব হত্যা করে। স্বাধীনতা পরবর্তীতে তার বাবার নামে ভাটাপাড়াস্থ নিজ বাড়ির সামনের রাস্তার নাম করণ করা হয় কামাল খাঁ রোড়। এই রাস্তার পাশেই লক্ষ্মীপুর মৌজায় দাগ নং-১০৬৯, খতিয়ান নং-৩৬৭, জে.এল নং-৭, হোল্ডিং নং-৯৭৩, পরিমান প্রায় আড়াই কাঠার উপরে তাদের বাড়ি। বাড়িটি পুরোনো হয়ে যাওয়াও ভেঙ্গে নতুন করে সেখানে বাড়ি করার জন্য আরডিএ থেকে প্ল্যান পাস করা হয়। এরপর নিয়ম অনুযায়ী বাড়ির কাজ শুরু করা হয় জানান তিনি।
কিন্তু পাশের বাড়ির মৃত ওয়াহেদ আলী খান এর ছেলে দেলোয়ার হোসেন সুইট গংরা শত্রুতা করে বাড়ির কাজ করতে বাধা প্রদান করেন। সুইট অত্র ওয়ার্ডের বিএনপি’র একজন প্রভাবশালী নেতা বলে জানান তিনি। তিনি সার্বক্ষনিক জামাতের সাথে থাকেন। ইকবাল আরো বলেন, সুইটের উচ্চ পর্যায়ের একজন সরকারী কর্মকর্তা আত্মীয় রয়েছেন। তাঁর প্রভাব খাটিয়ে শত্রুতা করে তার বিরুদ্ধে আরডিএ ও রাজপাড়া থানায় বাড়ির কাজ বন্ধ করার জন্য অভিযোগ করেন। ফলে পুলিশ এসে তার বাড়ি নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দেন। এতে করে তার অনেক ক্ষতি হচ্ছে। এছাড়াও একজন শহীদ পরিবারের প্রতি এমন আচরণ তিনি আশা করেন নি। তিনি সকল নিয়ম কানুন মেনে বাড়ির কাজ করছেন বলে জানান তিনি।
ইকবাল আরো বলেন, ইতোপূর্বে তার বাড়ির পাশে ১৮ ইি ছেড়ে আরেকজন বাড়ি করেছেন। অথচ তিনি সুইটের সাথে কথা বরে সমঝোতার মাধ্যেমে ২১ ইি ছেলে বাড়ি করছেন। এ পরে সুইট তার বাড়ির কাজ বন্ধ করে দিয়েছেন বলে জানান ইকবাল। শুধু তাইনয় মোড়ের দিকে বাড়ি হওয়ায় সুইট গংরা তার বাবার নামে রাস্তার নাম ফলকও স্থাপন করতে দেননি। তিনি আরো বলেন, সুইট জোর করে এজমাইলি সিমানা প্রাচীরের উপর আরসিসি পিলার দিয়ে দোতলা ভবন নির্মান করেছেন। এছাড়াও কামাল খাঁ মোড়ের সামনে প্রধান সড়কে সরকারী জায়গা দখল করে বেশ কয়েকটি দোকান ঘর নির্মান করে ভাড়া দিয়েছেন। অথচ তিনিই আমার বাড়ির উপরে অভিযোগ প্রদান করেছেন বলে জানান তিনি।
এ বিষয়ে জানতে সুইটকে বার বার মোবাইলে কল করলে তিনি মোবাইল রিসিভ না করায় কোন বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি। এদিকে ৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর নুরুজ্জামান টুকু বলেন, ইকবাল হোসেন খান তার নিকট মৌখিকভাবে এই বিষয় নিয়ে অভিযোগ করেছেন। এ নিয়ে উভয়কে ডেকে বসে একটি সমাধান করবেন বলে জানান তিনি।

বরেন্দ্র বার্তা/ফকবা/অপস

Close