চাঁপাই নবাবগঞ্জজয়পুরহাটনওগাঁনাটোরপাবনাবগুড়ামহানগরশিরোনামসিরাজগঞ্জ

রাজশাহী বিভাগে গত ২৪ ঘন্টায় মারা যায়নি কেউ, নতুন আক্রান্ত ১৯৪

 

নিজস্ব প্রতিবেদক : গত ২৪ ঘন্টায় রাজশাহী বিভাগে কোনো করোনা আক্রান্ত রোগি মারা যায়নি। গত ২৪ ঘণ্টায় বিভাগে মোট ১৯৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। পাবনা ও জয়পুরহাটে এ দিন কোন করোনা আক্রান্ত শনাক্ত হয়নি। একই সময় সুস্থ্য হয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরেছেন ১১৪ জন।

সোমবার সকাল পর্যন্ত রাজশাহী বিভাগে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮৬২৩ জনে। এ বিভাগে এখন পর্যন্ত মারা গেছেন ১১৪ জন এবং সুস্থ্য হয়েছেন ৩৩৮৫ জন। দুপুরে এক প্রতিবেদনে রাজশাহী বিভাগীয় স্বাস্থ্য দপ্তারের পরিচালক ডা. গোপেন্দ্র নাথ আচার্য্য এ তথ্য জানিয়েছেন।

ডা. গোপেন্দ্র নাথ জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন শনাক্তের মধ্যে রাজশাহীর ৮১ জন, চাঁপাইনবাবগঞ্জে ২২ জন, নওগাঁয় ২ জন, নাটোরের ১১ জন, বগুড়ায় ৫২ জন ও সিরাজগঞ্জে ২৬ জন।

তিনি জানান, রাজশাহী বিভাগে আক্রান্তদের মধ্যে সর্বোচ্চ বগুড়ায় ৩৭৬৩ জন। এছাড়াও রাজশাহী জেলায় ১৬৮২ জন, চাঁপাইনবাবগঞ্জে ১৯৯ জন, নওগাঁয় ৬৭৬ জন, নাটোরে ৩০৫ জন, জয়পুরহাটে ৫৫০ জন, সিরাজগঞ্জে ৮৪৯ জন ও পাবনায় ৫৯৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

তিনি বলেন, সরকারি হিসেবে এ পর্যন্ত বিভাগের আট জেলার মধ্যে ছয় জেলায় মৃতের সংখ্যা ১১৪ জন। এর মধ্যে রাজশাহীতে ১৫ জন, নওগাঁয় ১০ জন, নাটোরে একজন, বগুড়ায় ৭০ জন, সিরাজগঞ্জে নয়জন ও পাবনায় নয়জনের মৃত্যু হয়েছে করোনাভাইরাসে। সরকারি হিসেবে এখনো জয়পুরহাট ও চাঁপাইনবাবগঞ্জে কোন করোনা আক্রান্ত রোগি মারা যায়নি।

গত ২৪ ঘন্টায় সুস্থ্য হয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরেছেন আরও ১১৪ জন। এ নিয়ে বিভাগে সুস্থ্য হয়েছেন ৩৩৮৫ জন করোনা আক্রান্ত রোগি। এর মধ্যে রাজশাহীর ৩৩৮, চাঁপাইনবাবগঞ্জে ৯৩ জন, নওগাঁয় ৪৯৫ জন, নাটোরে ১০০ জন, জয়পুরহাট ১৭৪ জন, বগুড়ায় ১৮৩৭ জন, সিরাজগঞ্জ ১২৭ জন ও পাবনায় ২২১ জন।

ডা. গোপেন্দ্র নাথ বলেন, করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে মানুষের সচেতনতার কোনো বিকল্প নেই। অতি জরুরী প্রয়োজন ছাড়া বাড়ির বাইরে বের হওয়া যাবে না। প্রয়োজনে বের হলে মাস্ক পরতে হবে। এছাড়াও সামাজিক দুরত্ব রাখাসহ মেনে চলতে হবে স্বাস্থ্যবিধি। তবেই করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখা সম্ভব বলে মনে করেন এই স্বাস্থ্য কর্মকর্তা।

বরেন্দ্র বার্তা/অপস

Close