চারঘাটশিরোনাম-২

চারঘাট-বাঘা সড়কের বেহাল দশা, জনদুর্ভোগ চরমে

 

মো: সজিব ইসলাম,চারঘাট: রাজশাহীর চারঘাট-বাঘা মহাসড়কের কয়েকটি স্থানে কার্পেটিং উঠে গিয়ে রাস্তা জুড়ে অসংখ্য ছোট বড় খানাখন্দের সৃষ্টি হয়েছে। রাস্তায় চলতে গিয়ে ঘটছে অহরহ দুর্ঘটনা। প্রায় বছর খানেক ধরে এমন অবস্থা বিরাজ করলেও সংশ্লিষ্ট দপ্তরের কর্মকর্তারা রয়েছেন নির্বিকার।

জানা যায়, সড়কটির শিবপুর, হলিদাগাছির দিঘলকান্দি গ্রাম রোড, তালতলা, ট্রাফিক মোড়, সারদা বাজার, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স গেটের সামনে, চারঘাট সিনেমা হল মোড় থেকে মীরগঞ্জ মোড় পর্যন্ত বিভিন্ন জায়গায় প্রায় শতাধিক খানাখন্দের সৃষ্টি হয়েছে। কয়েকটি স্থানে পিচঢ়ালা সড়কের উপর ইটের রাস্তা তৈরি করা হয়েছে।

ব্যস্ততম এ রাস্তা দিয়ে ঢাকাসহ দক্ষিনাঞ্চলে যাওয়া যানবাহন গুলো রাত বিরাতে চলতে গিয়ে অহরহ দুর্ঘটনার কবলে পড়ছে। আর এতে চরম ঝুকির মধ্যে পড়েছে রাস্তার ধারে বসবাসকারী লোকজন।

গত কয়েক মাস ধরে এভাবে রাস্তা পারাপার করতে গিয়ে মাল বোঝায় ট্রাকসহ ছোট ছোট যানবাহন প্রতিনিয়তই ঘটছে দুর্ঘটনা। এতে চরম ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছেন পথচারীরা। সংশ্লিষ্ট দপ্তরের উদাসিনতায় রাস্তাঘাটের এমন করুন অবস্থা বলে অভিযোগ করেছেন এলাকাবাসী।

ব্রাক অফিস সংলগ্ন মুসার মোড়ের তাওহিদ আলম জানান, গত কয়েকদিন আগে এখানে একটি মাল বোঝায় মিনি ট্রাক উল্টে যায়।স্থানীয়দের সহায়তায় ট্রাকটি উদ্ধার করার পর থেকে সেখানে এখন বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। পিচ উঠে মাটি বের হয়ে গেছে। কয়েকদিনের বৃষ্টিতে পানি জমে চরম বেকায়দার মধ্যে দিয়ে চলছে যানবাহন।

অপর দিকে একই অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে চারঘাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স গেট ও ট্রাফিক মোড়ে। একটু বৃষ্টি হলেই জমে থাকে পানি। ইট বালি ফেলে চলাচলের চেষ্টা করা হলেও এখন বিভিন্ন স্থানে সৃষ্টি হয়েছে মরন ফাঁদ। দ্রুত ব্যস্ততম রাস্তাটি মেরামত করা না হলে যে কোন সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনার আশংকা করছেন স্থানীয়রা।
পানি নিস্কাশনের ব্যবস্থা নাজুক হওয়ায় রাস্তায় পানি জমে রাস্তা ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। এছাড়াও রাস্তায় নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহারের অভিযোগ করেছেন এলাকাবাসী।

রাজশাহী সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী শামসুজ্জোহা জানান, সড়কটির সকল ক্ষতিগ্রস্ত জায়গায় মেইনটেনেন্সের কাজ চলছে। আধুনিক ও টেকসই চার লেনের সড়ক নির্মাণের জন্য ইতিমধ্যে দরপত্র আহ্বান করা হয়েছে। দরপত্র মূল্যায়ন শেষে ঠিকাদার নিয়োগের মাধ্যমে এই সড়কটি নির্মানের কার্যক্রম শুরু হবে।

বরেন্দ্র বার্তা/অপস

Close