পাবনাশিক্ষাঙ্গন বার্তাশিরোনাম-২

বঙ্গবন্ধু’র জন্মশতবার্ষিকীতে পাবনা টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজের বৃক্ষরোপণে শোভাবর্ধন

 

শফিক আল কামাল, পাবনা : বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতিকে ইতিহাসের পাতায় অম্লান করতে বর্হিঃবিশ্ব এবং দেশব্যাপী নানা কর্মসূচি গ্রহন করা হয়। কিন্তু হঠাৎ বিশ্বব্যাপী মরণঘাতি করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) মানুষের স্বাভাবিক কার্যক্রম ব্যাহত করে দিয়েছে। তারপরও বীরে জাতি বাঙালী দমে থাকার অবকাশ নেই। হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালী বঙ্গবন্ধু’র প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধায় স্মরণ করে যাচ্ছেন।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে “মুজিববর্ষের অঙ্গিকার দেশ হবে সবুজের সমাহার “এই প্রতিপাদ্য নিয়ে সোমবার (২০’জুলাই) পাবনা টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজে বৃক্ষ রোপণের মাধ্যমে শোভাবর্ধন করা হয়। পাবনা টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজের অধ্যক্ষ ইঞ্জিনিয়ার মো. জমিদার রহমানের সভাপতিত্বে কর্মসূচির উদ্বোধন করেন পাবনা প্রেসক্লাবের সভাপতি এবিএম ফজলুর রহমান। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা শিক্ষা অফিসার এস এম মোসলেম উদ্দিন। বিশেষ অতিথি ছিলেন পাবনা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সৈকত আফরোজ আসাদ, পাবনা রির্পোটার্স ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক কাজী মাহবুব মোর্শেদ বাবলা এবং পাবনার পৌর ৩ নং কাউন্সিলর শেখ মো. ইকবাল। এ সময় বৃক্ষরোপন কর্মসুচিতে আরও অংশ নেন দৈনিক সিনসার সম্পাদক এস এম মাহাবুব আলম, বাসস’র জেলা প্রতিনিধি রফিকুল ইসলাম সুইট, পাবনা নিউজ টোয়েন্টিফোর.কম’র প্রধান নির্বাহী খালেদ হোসেন পরাগ, আমাদের অর্থনীতির জেলা প্রতিনিধি মিজান তানজিল, টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজের চীফ ইন্সট্রাক্টর মো. শাহ আলম, মো. মিজানুর রহমান, মো. তারিকুল হাকিম, মো. আনোয়ার রশিদ খান, লিপি রানী সরকার এবং বাসুদেব রায়, ইন্সট্রাক্টর মো. হাসানুজ্জামান, রতন কুমার রায় এবং মো. রবিউল ইসলাম, জুনিয়র ইন্সট্রাক্টর মো. মাসুদ করিম, মো. শফিকুল ইসলাম, মো. রাশেদুল আলম, মোছা. আয়শা সিদ্দীকা, মো. খায়রুল ইসলাম মোড়ল, মীর মো. আবু জাফর এবং এ.কে.এম. তারিক রেজা, কম্পিউটার অপারেটর আব্দুর রাজ্জাক ও মুহাম্মদ লুৎফর রহমান প্রমুখ।

আম, কৃষ্ণচুড়া, বেল, মেহগনি, জারুল ফুল, টগর ইত্যাদি ফলজ, বনজ ও ঔষধি বৃক্ষ রোপন করা হয়। এর আগেও নারিকেল, বকুল ফুলের গাছ রোপন করা হয়। অধ্যক্ষ ইঞ্জিনিয়ার মো. জমিদার রহমানের মেধা, মননশীলতা এবং আন্তরিক প্রচেষ্টায় পাবনা টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজ দেশের অন্যতম আধুনিক মডেল শিক্ষা ক্যাম্পাস তৈরী হতে যাচ্ছে। ইতিমধ্যে সম্পূর্ণ মাদকমুক্ত ক্যাম্পাস করতে সক্ষম হয়েছেন। শুধু তাই নয়, শিক্ষার মানন্নোয়নে যত প্রকার সুযোগ সুবিধা প্রয়োজন শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের জন্য তার যথাযথভাবে পুরন করতে সক্ষম হয়েছেন। তাঁর এই সফল উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন এলাকাবাসী, সচেতন মহল এবং সংশ্লিষ্ট কর্তপক্ষ।

বরেন্দ্র বার্তা/অপস

Close