চাঁপাই নবাবগঞ্জজয়পুরহাটনওগাঁনাটোরপাবনাবগুড়ামহানগরশিরোনামসিরাজগঞ্জস্বাস্থ্য বার্তা

রাজশাহী বিভাগে আরও ৩৫৩ জনের করোনা শনাক্ত, সুস্থ্য ১৫৫, মৃত্যু ২

 

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহী বিভাগের আট জেলার মধ্যে সাত জেলায় গত ২৪ ঘণ্টায় ২৫৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। সুস্থ্য হয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরেছেন ১৫৫ জন। এ দিনে জয়পুরহাটে একজন ও চাঁপাইনবাবগঞ্জে একজন করোনা আক্রান্ত রোগীর মৃত্যু হয়েছে।
গত ২৪ ঘন্টায় রাজশাহীতে ৮০ জন, চাঁপাইনবাবগঞ্জে ২৮ জন, নওগাঁয় ১৩ জন, নাটোরে ৩৮ জন, বগুড়ায় ৫০ জন, সিরাজগঞ্জে ২৩ জন ও পাবনায় ২১ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এই দিনে জয়পুরহাটে কোনো করোনা রোগী শনাক্ত হয়নি।

বৃহস্পতিবার দুপুর পর্যন্ত রাজশাহী বিভাগে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১২ হাজার ৫৮৮ জনে। এ বিভাগে এখন পর্যন্ত মারা গেছেন ১৬৯ জন এবং সুস্থ্য হয়েছেন ৬ হাজার ৬৩৭ জন। দুপুরে এক প্রতিবেদনে রাজশাহী বিভাগীয় স্বাস্থ্য দপ্তারের পরিচালক ডা. গোপেন্দ্র নাথ আচার্য্য এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি জানান, রাজশাহী বিভাগে আক্রান্তদের মধ্যে সর্বোচ্চ বগুড়ায় ৪ হাজার ৭৩৭ জন। এছাড়াও রাজশাহী জেলায় ৩ হাজার ৫৫ জন, চাঁপাইনবাবগঞ্জে ৪৪৮ জন, নওগাঁয় ৯৩৬ জন, নাটোরে ৪৭৭ জন, জয়পুরহাটে ৭০৮ জন, সিরাজগঞ্জে ১ হাজার ৩৮৪ জন ও পাবনায় ৮৪৩৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

তিনি বলেন, সরকারি হিসেবে এ পর্যন্ত বিভাগের আট জেলার মৃতের সংখ্যা ১৬৯ জন। এর মধ্যে রাজশাহীতে ২৩ জন, চাঁপাইনবাবগঞ্জে ৬ জন, নওগাঁয় ১৪ জন, নাটোরে একজন, জয়পুরহাটে ৩ জন, বগুড়ায় ১০২ জন, সিরাজগঞ্জে ১১ জন ও পাবনায় নয়জনের মৃত্যু হয়েছে করোনাভাইরাসে।

এ পর্যন্ত রাজশাহী বিভাগে সুস্থ্য হয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরেছেন ৬ হাজার ৬৩৭ জন করোনা আক্রান্ত রোগি। এর মধ্যে রাজশাহীর ১২৫৬, চাঁপাইনবাবগঞ্জে ২০৬ জন, নওগাঁয় ৭১১ জন, নাটোরে ২২০ জন, জয়পুরহাট ২০৬ জন, বগুড়ায় ৩ হাজার ১৯১ জন, সিরাজগঞ্জ ৪৪৪ জন ও পাবনায় ৪০৩ জন।

ডা. গোপেন্দ্র নাথ বলেন, করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে মানুষের সচেতনতার কোনো বিকল্প নেই। অতি জরুরী প্রয়োজন ছাড়া বাড়ির বাইরে বের হওয়া যাবে না। প্রয়োজনে বের হলে অবশ্যই মাস্ক পরতে হবে। এছাড়াও সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখাসহ মেনে চলতে হবে স্বাস্থ্যবিধি। তবেই করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখা সম্ভব বলে মনে করেন এই স্বাস্থ্য কর্মকর্তা।

বরেন্দ্র বার্তা/অপস

Close