মহানগরশিরোনাম

বাংলাদেশে সন্ধান মেলেছে রিং প্রজাপতির নতুন আরেকটি দলের

কামরুল হাসান অভি, রাবি প্রতিনিধি: পাখনায় গোল গোল কালো চাকতি ওয়ালা প্রজাপতি সন্ধান ছিলো তিনটির। যাদেরকে রিং জাতীয় প্রজাপতি বলা হয়ে থাকে। বাংলাদেশে রিং জাতীয় প্রজাপতির সেই তালিকায় যুক্ত হলো আরও একটি প্রজাপতি। বিষয়টি দাবি করছেন রাজশাহীর ‘হাইটেবিল’ নামের একদল ফটোগ্রাফার।
গত ১ অক্টোবর রাজশাহীর পদ্মাপাড় শিমলা এলাকায় সন্ধান পেয়েছেন তারা। বিষয়টি জানিয়েছেন ‘হাইটেবিল’গ্রুপ সদস্য ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ফটোগ্রাফিক ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ইমরুল কায়েস। নতুন পাওয়া প্রজাপতিটির বৈজ্ঞানিক নাম ‘ইপথিমা অ্যাস্টেরোপ’।
বাংলাদেশের প্রজাপতির তালিকায় এটি রেকর্ডেড ছিলো না দাবি করে ইমরুল কায়েস জানান, প্রজাপতির বেশ কয়েকটি পরিবার আছে। এটি ব্রাস্টফুটেড বাটারফ্লাইয়ের পরিবারের মধ্যে পড়ে। ব্রাস্টফুটেডের মধ্যে কয়েকটা আছে রিং। যার বিশেষত্ব হলো এদের পাখনা বাদামী রংয়ের এবং পাখনার উপরে কালো রংয়ের গোল গোল চাকতি থাকে। গোটা পৃথিবীতে এই রিং জাতীয় প্রজাপতি ২০ টির মতো আছে।
বাংলাদেশে রিং জাতীয় প্রজাপতির মধ্যে ৩ টা রেকর্ডেড। যার দুইটা প্রায়ই দেখা যায় আরেকটা খুব কম দেখা যায়। এইটা দিয়ে বাংলাদেশে রিং জাতীয় প্রজাপতির সংখ্যা ৪ টি।
কিভাবে খোঁজ পেলেন সে বিষয়ে জানতে চাইলে ইমরুল কায়েস বলেন, হাইটেবিল গ্রুপটি মাছ, প্রজাপতি, ফড়িং, পোকা মাকড়, পাখি নিয়ে স্টাডি করি। আমরা দীর্ঘদিন ধরেই খুঁজছিলাম। সন্দেহ ছিলো বর্ডারের ওপাশে যেহেতু আছে সেহেতু বাংলাদেশেও থাকতে পারে।
সেদিন বৃষ্টি শেষে আমরা বসেছিলাম পদ্মাপাড়ের ওই এলাকায়। প্রথমে আমাদের আকাশ মজুমদার নামের একজন সদস্য সেটি লক্ষ্য করেন। পরে ডা. মাহমুদুল হক ওলি বিকেল ৫ টার দিকে প্রথম ছবি তুলেন। গ্রুপ সদস্য দুর্লভ এবং তুষার ইসলামকে সাথে নিয়ে সবাই তুলেছিলেন প্রজাপতিটির ছবি।
বরেন্দ্র বার্তা/ নাসি

Close