উন্নয়ন বার্তামহানগরশিরোনাম

নির্বাচনে জয়ী হলে হেলদি সিটি গড়তে তামাকমুক্ত নগরী গড়ে তোলা হবে- মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহী নগরীকে ‘গ্রীনসিটি, ক্লিনসিটি, এডুকেশনসিটি, হেলদিসিটি’ হিসেবে গড়ে তুলতে হলে তামাক নিয়ন্ত্রনের বিকল্প নেই। স্বাস্থ্য সম্মত নগরের পূর্বশর্ত  হলো ধূমপানমুক্ত পাবলিক প্লেস ও কর্মক্ষেত্র। রাজশাহীকে স্বাস্থ্য সম্মত, সবুজ নগরীগড়ে তোলার লক্ষ্যে ‘তামাকমুক্ত রাজশাহী’ তথা নগরীর পাবলিক প্লেস ও কর্মক্ষেত্র সমূহে ধূমপানমুক্ত পরিবেশ নিশ্চিত করার জন্য ভোটার রা আমাকে নির্বাচিত করলে আমার পক্ষ থেকে সব ধরনের সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে। গতকাল সকাল ১০.৩০ টায় তামাক নিয়ন্ত্রনে কর্মরত বেসরকারী সংগঠন এ্যাসোসিয়েশন ফর কম্যুনিটি ডেভেলপমেন্ট-এসিডির একটি প্রতিনিধি দলের সাথে উপরোক্ত কথা বলেছেন মেয়র পদপার্থী রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের বর্তমান মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল ।

সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে জয়ী হলে পাবলিক প্লেস ও পাবলিক পরিবহনকে ধূমপানমুক্ত করে স্বাস্থ্যসম্মত নগরী গড়ে তোলার কাজকে প্রধান্য দিব ভোটারদের নিকট এমন প্রতিশ্রুতি দেন সাবেক এ মেয়র। তিনি আরও বলেন, ২০১৪ সালে তাঁর সময়েই বাংলাদেশের মধ্যে প্রথম স্থানীয় সরকারের বাৎসরিক উন্নয়ন বাজেটে তামাক নিয়ন্ত্রণ নির্দেশিকা বাস্তবায়নে নির্দিষ্ট খাত উল্লেখ পূর্বক বরাদ্দ রাখাসহ সিটি কর্পোরেশনের ওয়েবসাইটে ধূমপানমুক্ত গাইড লাইন প্রকাশ সহ জনসচেতনতায় সিটি কর্পোরেশন কর্তৃক প্রদত্ত্ব নাগরিকত্ব সনদ, প্রিমিসেস লাইসেন্সে তামাক নিয়ন্ত্রনে মেসেজ প্রদর্শন, নিয়ন সাইনের মাধ্যমে তথ্য প্রচার এবং পাবলিক প্লেস সমুহে ধূমপানমুক্ত সাইনেজ প্রদর্শন করা হয়। আগামী নির্বাচনে যদি ভোটার রা আমাকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করে তাহলে তামাকমুক্ত সিটি কর্পোরেশন গড়ার মধ্য দিয়ে টেকসই উন্নয়ন বাস্তবায়নে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর অঙ্গীকার ২০৪০ সালের মধ্যে বাংলাদেশ থেকে তামাকের ব্যবহার সম্পূর্নভাবে নির্মূল করা সম্ভব হবে বলে তনি মনে করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন এসিডি’র প্রজেক্ট কো অর্ডিনেটর এহসানুল আমিন ইমন, এডভোকেসি অফিসার শরিফুল ইসলাম শামীম, প্রোগ্রাম অফিসার কৃষ্ণা রানী বিশ্বাস, তুহিন ইসলাম প্রমুখ।  বরেন্দ্র বার্তা/এই

 

Close