মহানগরশিরোনাম

রাজশাহীতে পঞ্চম দিনের মতো চলছে করোনাভাইরাসের টিকাদান

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজশাহীতে পঞ্চম দিনের মতো চলছে করোনাভাইরাসের টিকাদান কর্মসূচি। টিকা নিতে সাধারণ মানুষ স্বতঃস্ফূর্তভাবে উপস্থিতি লক্ষ্য করা গেছে। গত ৭ ফেব্রুয়ারি শুরু হওয়া টিকাদান৷

আজ বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পঞ্চম দিনের টিকাদান কর্মসূচি শুরু হয়েছে। সকালে রামেক হাসপাতালে গিয়ে ব্যাপক মানুষের ভিড় দেখা যায়। সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ সাধারণ মানুষদের উপস্থিতি ছিলো ব্যাপক।

রাজশাহীতে পঞ্চম দিনের মতো চলছে করোনাভাইরাসের টিকাদান
ছবি: নাদিম সিনা

টিকা গ্রহণের অনুভূতি ব্যক্ত করতে গিয়ে নিউ গভ. ডিগ্রী কলেজের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মো: তানভিরুল হক বলেন, আমি খুব স্বাচ্ছন্দ্যের সাথেই করোনা টিকার ১ম ডোজ গ্রহণ করেছি। কোন ধরনের ব্যথা অনুভব করিনি। দায়িত্বরত স্বাস্থ্যকর্মীদের যথেষ্ট আন্তরিকতা লক্ষ্য করেছি। তাই ভয় না পেয়ে আমাদের উচিৎ হবে স্বতঃস্ফূর্তভাবে ভ্যাক্সিন গ্রহণের মাধ্যমে করোনাকে পরাজিত করা।

অন্যদিকে নিউ গভ. ডিগ্রী কলেজের একই বিভাগের প্রভাষক রহিদুল ইসলাম বলেন, টিকা গ্রহণের নিবন্ধন থেকে শুরু করে টিকা প্রয়োগ পর্যন্ত পুরো প্রক্রিয়াটিই ছিলো অত্যন্ত সহজ। তবে টিকা কেন্দ্রে স্বাস্থ্যবিধির কোনো ধরনের বালাই আমি লক্ষ্য করছি না। আর শুরু থেকেই টিকা নিয়ে যে ধরনের ভীতি বা পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া সম্পর্কে ধারনা উঠেছিল তা মোটেও যৌক্তিক না। কেননা টিকা গ্রহণের ১ঘন্টা অতিক্রম হলেও এখন পর্যন্ত কোনো ধরনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া বা দুর্বলতা আমার মধ্যে কাজ করছে না।

রাজশাহীতে পঞ্চম দিনের মতো চলছে করোনাভাইরাসের টিকাদান
ছবি: নাদিম সিনা

উল্লেখ্য যে, রাজশাহী শহরে মোট তিনটি কেন্দ্রে রোববার থেকে টিকা প্রয়োগ শুরু হয়েছে। অন্য দুটি কেন্দ্র হলো- বিভাগীয় পুলিশ হাসপাতাল এবং সম্মিলিত সামরিক হাসপাতাল।

এছাড়াও রাজশাহীতে উপজেলা পর্যায়ে ১০টি কেন্দ্রে টিকা প্রয়োগ শুরু হয়েছে। এর মধ্যে ৯ উপজেলার ৯টি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স রয়েছে। এর বাইরে গোদাগাড়ী উপজেলায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ছাড়াও গোদাগাড়ী ৩১ শয্যাবিশিষ্ট বিশেষায়িত হাসপাতালে টিকা দেওয়া হচ্ছে। প্রথম ধাপে রাজশাহীর ১ লাখ ৮০ হাজার মানুষকে টিকার আওতায় আনা হবে। আপাতত যারা অ্যাপে নাম নিবন্ধন করেছে তাদেরই টিকা দেওয়া হচ্ছে।

বরেন্দ্র বার্তা/ নাসি

Close