ছবি ঘরমহানগরশিরোনাম

রাজশাহী জুড়ে উদযাপিত হচ্ছে স্বাধীনতার সূবর্ণ জয়ন্তী

রাজশাহী মহানগর

রাজশাহী জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস ২০২১ উদযাপন

আজ রাজশাহীতে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস-২০২০ উদযাপন উপলক্ষে যথাযোগ্য মর্যাদায় জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়েছে।
সূর্যোদয়ের সাথে সাথে সকল সরকারি, আধা-সরকারি, স্বায়ত্বশাসিত ও বে-সরকারি প্রতিষ্ঠানসমূহে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়।
সকাল আটটায় মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি স্টেডিয়ামে জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিলের সভাপতিত্বে রাজশাহী বিভাগের বিভাগীয় কমিশনার ড. মোঃ হুমায়ুন কবীর প্রধান অতিথি হিসেবে আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশনার সাথে সাথে জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও কুচকাওয়াজ পরিদর্শন করেন।
অনুষ্ঠানে বিভাগীয় কমিশনার বলেন, বঙ্গবন্ধু ৭ মার্চের ভাষণে বলেছিলেন ‘আমাদের দাবায়ে রাখতে পারবে না’। বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আজ বাংলাদেশ দুরন্ত গতিতে এগিয়ে চলেছে। বৈশি^ক মহামারি করোনার মধ্যেও আমাদের প্রবৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। বিশ^ ব্যাংক ও আইএমএফ স্বীকৃতি দিয়েছে যে, বাংলাদেশ বিশে^ উন্নয়নের রোল মডেল।
এ সময় অন্যান্যের মধ্যে রাজশাহী রেঞ্জের ডিআইজি মোঃ আব্দুল বাতেন বিপিএম, পিপিএম, পুলিশ কমিশনার, আরএমপি, রাজশাহী মোঃ আবু কালাম সিদ্দিক, পুলিশ সুপার এ বি এম মাসুদ বিপিএম (বার), বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ ও মুক্তিযোদ্ধাগণ উপস্থিত ছিলেন।
এর আগে সূর্যোদয়ের সাথে সাথে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় চত্বরে অবস্থিত শহিদ স্মৃতিফলকে পুষ্পস্তবক অর্পন করেন রাজশাহী বিভাগের বিভাগীয় কমিশনার ড. মোঃ হুমায়ুন কবীর। এছাড়া জেলা প্রশাসন, পুলিশ বিভাগ, বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি সংস্থা ও রাজনৈতিক অঙ্গ সংগঠনও আলাদাভাবে পুষ্পস্তবক আর্পণ করেন। -সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

রাসিকের উদ্যোগে স্বাধীনতার সূবর্ণ জয়ন্তী উদযাপন বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি ও শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ

২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস-২০২১ এবং স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী যথাযথ মর্যাদা ও উৎসাহ উদ্দীপনার সাথে উদযাপন করেছে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন। দিবসটি উপলক্ষ্যে শুক্রবার সকাল ৭টায় নগর ভবনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পণ করা হয়। এরপর র‌্যালি, শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ, এক মিনিট নীরবতা পালন, দোয়া ও মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়।

এদিন সকাল ৭টায় নগর ভবনে শুরুতে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটনের পক্ষে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন কাউন্সিলরবৃন্দ। এরপর কাউন্সিলরব, কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ এবং কর্মচারী ইউনিয়নের পক্ষ থেকে পৃথকভাবে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। পুষ্পার্ঘ্য অর্পণের বঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারের শহীদ সদস্যবৃন্দ, শহীদ এ.এইচ.এম কামারুজ্জামান সহ জাতীয় চার নেতা ও দেশের জন্য জীবন উৎসর্গকারী শহীদদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া ও মোনাজাত করা হয়।

এরপর নগর ভবন থেকে র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি দড়িখরবনা মোড় হয়ে মহিলা কলেজের সামনে দিয়ে মালোপাড়া হয়ে সোনাদিঘির পাশ দিয়ে লোকনাথ স্কুলের সামনে হয়ে রাজশাহী কলেজ শহীদ মিনারে গিয়ে শেষ হয়। এরপর শহীদ মিনারে রাসিক মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটনের পক্ষে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন কাউন্সিলরবৃন্দ। এ সময় কাউন্সিলরবৃন্দ, কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ এবং কর্মচারী ইউনিয়নের পক্ষ থেকে পৃথকভাবে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। পুষ্পস্তবক অর্পণের পর শহীদদের স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।

কর্মসূচিতে রাসিকের প্যানেল মেয়র-১ ও ১২ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সরিফুল ইসলাম বাবু, প্যানেল মেয়র-২ ও ১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রজব আলী, পুষ্পস্তবক অর্পণ উপ-কমিটির আহ্বায়ক ও ১৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর তৌহিদুল হক সুমন, ১১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রবিউল ইসলাম তজু, ১৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল মমিন, ১৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুস সোবহান, ১৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর বেলাল আহম্মেদ, ১৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শহিদুল ইসলাম, ২০নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রবিউল ইসলাম, ২২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল হামিদ সরকার, ২৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর তরিকুল আলম পল্টু, ২৬ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ আকতারুজ্জামান, ২৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আনোয়ারুল আমিন, সংরক্ষিত ওয়ার্ডের কাউন্সিল আয়েশা খাতুন, মুসলিমা বেগম বেলী, মাজেদা বেগম, উম্মে সালমা, নাদিরা বেগম, লাইলি বেগম, প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ড.এবিএম শরীফ উদ্দিন, প্রধান প্রকৌশলী মোঃ শরিফুল ইসলাম, প্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা শেখ মোঃ মামুন, প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা আবু সালেহ মোঃ নূর-ঈ-সাঈদ, বাজেট কাম হিসাব রক্ষণ কর্মকর্তা মোঃ শফিকুল ইসলাম খান, প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. এফএএম আঞ্জুমান আরা বেগম, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী নুর ইসলাম তুষার সহ বিভিন্ন শাখা প্রধান সহ অন্যান্য কর্মকর্তাবৃন্দ, কর্মচারী ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আজমির আহম্মেদ মামুন সহ কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

দিবসের কর্মসূচির মধ্যে আরো আছে সূর্যোদয়ের সাথে সাথে নগর ভবন সহ ওয়ার্ড কার্যালসমূহে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, বাদ জুম্মা সোনাদিঘি জামে মসজিদ সহ ওয়ার্ডের প্রত্যেক মসজিদে মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের আত্মার মাগফেরাত সহ দেশ ও জাতির শান্তি ও অগ্রগতি কামনা করে দোয়া এবং সুবিধাজনক সময়ে অন্যান্য ধর্মীয় উপসনালয়ে বিশেষ প্রার্থনা, বিকেল ৪টায় জেলা মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি স্টেডিয়ামে বিভাগীয় কমিশনার একাদশ বনাম মেয়র একাদশ প্রীতি ফুটবল ম্যাচ, সন্ধ্যা ৭টায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও আতশবাজি, নগর ভবন সহ বিভিন্ন স্থাপনা, সড়কদ্বীপ সমূহ ও মহাসড়কের প্রধান গেটগুলো আলোকায়ন।-সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

মহান স্বাধীনতা দিবসে বিএনএফ শ্রদ্ধা নিবেদন

মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষ্যে রাজশাহী জেলার বাংলাদেশ এনজিও ফাউন্ডেশন (বিএনএফ) এর সহযোগি সংস্থার প্রধানগন রাজশাহী ভূবন মোহন পার্কে অবস্থিত স্মৃতি স্তম্ভে বীর শহীদদের প্রতি ফুলেল তোরা অর্পনের মাধ্যমে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। শ্রদ্ধা নিবেদনকালে শহিদ বেদিতে বীর শহদীদের প্রতি সম্মান জানিয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। শ্রদ্ধা নিবেদন এর পূর্বে নগরীর রানীবাজারস্থ চেম্বার ভবন এর সামনে থেকে র‌্যালি অনুষ্ঠিত হয় যা ভূবন মেহান পার্কে এসে শেষ হয়। লফস এর নির্বাহী পরিচালক ও বাংলাদেশ এনজিও ফাউন্ডেশনের সাবেক নির্বাহী কমিটির সদস্য শাহনাজ পারভীন এর সভাপতিত্বে লফস এর সহ-সভাপতি আজিজুর রহমান, কোষাদক্ষ শহিদুর রহমান, সহ সহযোগি সংস্থা কাকঁন বহুমূখী উন্নয়ন সংস্থা (কাবিউস), মহান স্বাধীনতা দিবসে বিএনএফ শ্রদ্ধা নিবেদনরাজশাহী সোস্যাল ডেভেলপমেন্ট প্রোগ্রাম (আর,এস,ডি,পি), শাপলা গ্রাম উন্নয়ন সংস্থা, পার্টিসিপেটরি ডেভেলপমেন্ট অর্গানাইজেশন (পিডিও), লক্ষীপুর দুস্থ্য মহিলা শিল্প সংস্থা, প্রতিবন্ধি সেচ্ছাসেবী সোসাইটি, নিকুঞ্চ বস্তি উন্নয়ন সংস্থা (নিবুস) ও লফস। প্রত্যেক সংস্থার নির্বাহী প্রধান সহ কর্মকর্তাবৃন্দ কর্মসূচীতে অংশগ্রহন করেন। অনুষ্ঠান সার্বিক ভাবে পরিচলানা করেন রাজশাহী জেলার দায়িত্বপ্রাপ্ত সংস্থা লেডিস অর্গনাইজেশন ফর সোসাল ওয়েলফেয়ার (লফস) প্রোগ্রাম ম্যানেজার মোঃ সালাউদ্দিন, প্রোগ্রাম অফিসার চম্পা খাতুন, প্রোগ্রাম এ্যাসিসটেন্ট সুলতানা রিজিয়া। র‌্যালিতে বিভিন্ন সংস্থার প্রায় শতাধিক কর্মকর্তা/কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।- সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে রাবি ছাত্রদলের শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ

শুক্রবার ( ২৬ মার্চ) সকাল ৮ টায়, মহান স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে ও জাতীয় দিবসে, বীর মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযুদ্ধের সকল শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদল।
শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ শেষে মুক্তিযুদ্ধের জেড ফোর্সের কমান্ডার, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা, বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদের প্রবর্তক, বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রবর্তক শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান বীর উত্তম সহ সকল বীর সন্তানদের রুহের মাগফেরাত কামনা করেন উপস্থিত ছাত্রদলের নেতৃবৃন্দ।

এই সময় উপস্থিত ছিলেন রাবি ছাত্রদলের সাবেক সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক সুলতান আহমেদ রাহী,যুগ্ম সম্পাদক শামসুদ্দিন চৌধুরী সানিন, শাকিলুর রহমান সোহাগ, সাবেক প্রচার সম্পাদক মেহেদী হাসান,সাবেক সহ-সাংস্কৃতিক সম্পাদক ও শহীদ জিয়াউর রহমান হল ছাত্রদলের সভাপতি সরদার জহুরুল, সহ-আইন সম্পাদক হাবিব আহসান,সাবেক সদস্য মাহমুদুল হাসান মিঠু, বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদল নেতা আব্দুল লতিফ সম্রাট, শামস দীপ্ত, মারুফ হোসেন, সৌমন রায়,জহির শাওন,শেখ নুর উদ্দিন, সূর্য, আতিক শাহরিয়ার আবির সহ বিভিন্ন হল ও অনুষদ ছাত্রদলের সর্বস্তরের নেতাকর্মীবৃন্দ।- সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

বাগমারা
বাগমারায় নানা আয়োজনে স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপিত

রাজশাহীর বাগমারায় মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস এবং স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপিত হয়েছে। শক্রবার সকাল ৬ টায় ৫০ বার তোপধ্বনীর মধ্যে দিয়ে দিবসের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়। পরে উপজেলা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে উপজেলা প্রশাসন, পরিষদ, উপজেলা আওয়ামী লীগ সহ বিভিন্ন সংগঠন ও প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে এক মিনিট নীরবতা পালন করে সকল শহীদদের আত্মার শান্তি কামনায় দোয়া করা হয়।
দিবসটি যথাযথ ভাবে উদযাপনের লক্ষ্যে নানান কর্মসূচী গ্রহণ করেন উপজেলা প্রশাসন সহ উপজেলা আওয়ামী লীগ। এদিকে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস এবং স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপন উপলক্ষে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা ও আলোচনা সভার আয়োজন করেন উপজেলা প্রশাসন। বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘর কমপ্লেক্সের সালেহা ইমারত মিলনায়তনে উপজেলা নির্বাহী অফিসার শরিফ আহম্মেদের সভাপতিত্বে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। উক্ত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বক্তব্য রাখেন রাজশাহী-৪(বাগমারা) আসনের সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক। বাগমারা বাগমারায় নানা আয়োজনে স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপিত  রাজশাহীর বাগমারায় মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস এবং স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপিত হয়েছে। শক্রবার সকাল ৬ টায় ৫০ বার তোপধ্বনীর মধ্যে দিয়ে দিবসের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়। পরে উপজেলা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে উপজেলা প্রশাসন, পরিষদ, উপজেলা আওয়ামী লীগ সহ বিভিন্ন সংগঠন ও প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে এক মিনিট নীরবতা পালন করে সকল শহীদদের আত্মার শান্তি কামনায় দোয়া করা হয়।   দিবসটি যথাযথ ভাবে উদযাপনের লক্ষ্যে নানান কর্মসূচী গ্রহণ করেন উপজেলা প্রশাসন সহ উপজেলা আওয়ামী লীগ। এদিকে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস এবং স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপন উপলক্ষে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা ও আলোচনা সভার আয়োজন করেন উপজেলা প্রশাসন। বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘর কমপ্লেক্সের সালেহা ইমারত মিলনায়তনে উপজেলা নির্বাহী অফিসার শরিফ আহম্মেদের সভাপতিত্বে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। উক্ত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বক্তব্য রাখেন রাজশাহী-৪(বাগমারা) আসনের সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক।  বাঙ্গালী জাতি আজ স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী পালন করছে। স্বাধীনতার এই সুবর্ণ জয়ন্তীতে সবাইকে শপথ নিতে হবে জাতির জনক যে স্বপ্ন নিয়ে দেশবাসীর কল্যাণে কাজ করে গেছেন তা ধরে রাখতে হবে। তাঁর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার প্রত্যয়ে সবাইকে কাজ করতে হবে। নতুন প্রজন্মের মাঝে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শ তুলে ধরার পাশাপাশি তাদেরকে জানাতে হবে স্বাধীনতার সঠিক ইতিহাস।   একাডেমিক সুপারভাইজার আব্দুল মুমীতের পরিচালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অনিল কুমার সরকার, বাগমারা থানার অফিসার ইনচার্জ মোস্তাক আহম্মেদ, কৃষি অফিসার রাজিবুর রহমান, বীর মুক্তিযোদ্ধা রফিকুল ইসলাম, হীমেন্দ্রনাথ।  সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ গোলাম সারওয়ার আবুল, দপ্তর সম্পাদক নুরুল ইসলাম, ভাইস চেয়ারম্যান মমতাজ আক্তার বেবী, উপজেলা মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক জাহানারা বেগম, শ্রীপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক প্রভাষক জিল্লুর রহমান প্রমুখ।  এ সময় উপজেলা প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরের প্রধান, বীর মুক্তিযোদ্ধাগন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-শিক্ষার্থী সহ বিভিন্ন এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ এবং আ’লীগ ও অংগ সহযোগি সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।- বার্তা প্রেরক : আব্দুল মতিন, বাগমারা।
বাঙ্গালী জাতি আজ স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী পালন করছে। স্বাধীনতার এই সুবর্ণ জয়ন্তীতে সবাইকে শপথ নিতে হবে জাতির জনক যে স্বপ্ন নিয়ে দেশবাসীর কল্যাণে কাজ করে গেছেন তা ধরে রাখতে হবে। তাঁর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার প্রত্যয়ে সবাইকে কাজ করতে হবে। নতুন প্রজন্মের মাঝে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শ তুলে ধরার পাশাপাশি তাদেরকে জানাতে হবে স্বাধীনতার সঠিক ইতিহাস।
একাডেমিক সুপারভাইজার আব্দুল মুমীতের পরিচালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অনিল কুমার সরকার, বাগমারা থানার অফিসার ইনচার্জ মোস্তাক আহম্মেদ, কৃষি অফিসার রাজিবুর রহমান, বীর মুক্তিযোদ্ধা রফিকুল ইসলাম, হীমেন্দ্রনাথ। সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ গোলাম সারওয়ার আবুল, দপ্তর সম্পাদক নুরুল ইসলাম, ভাইস চেয়ারম্যান মমতাজ আক্তার বেবী, উপজেলা মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক জাহানারা বেগম, শ্রীপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক প্রভাষক জিল্লুর রহমান প্রমুখ।
এ সময় উপজেলা প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরের প্রধান, বীর মুক্তিযোদ্ধাগন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-শিক্ষার্থী সহ বিভিন্ন এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ এবং আ’লীগ ও অংগ সহযোগি সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।- বার্তা প্রেরক : আব্দুল মতিন, বাগমারা।

বগুড়া
স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে বিইউজে’র আলোচনা সভায় সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে প্রতিহত করার আহ্বান
মহান স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে আলোচনা সভায় সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ বলেছেন- দেশ যখন উন্নতি-অগ্রগতি ও সমৃদ্ধির পথে, সেসময় দেশকে পেছনে ঠেলে দিতে আবারও উগ্র সাম্প্রদায়িক অপশক্তি মাথাচাড়া দিয়েছে। পাকিস্তানী চেতনায় বিশ্ববাসী এই অপশক্তি দেশকে অস্থিতিশীল করতে নানা অপতৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে। যেকোনমূল্যে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী সকল মানুষকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে এই অপশক্তিকে মোকাবেলা করতে হবে।
বগুড়া সাংবাদিক ইউনিয়ন(বিইউজে) আয়োজিত আলোচনা সভায় বক্তারা এই আহ্বান জানান। বগুড়া প্রেসক্লাব মিলনায়তনে শুক্রবার সকাল সাড়ে ৯টায় অনুষ্ঠিত এই আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন বিইউজে’র সভাপতি আমজাদ হোসেন মিন্টু। সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক জে এম রউফের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের(বিএফইউজে) নির্বাহী সদস্য ও বগুড়া প্রেসক্লাবের সভাপতি মাহমুদুল আলম নয়ন, সাধারণ সম্পাদক আরিফ রেহমান, আব্দুস সালাম বাবু, সাজেদুর রহমান সিজু, সাজ্জাদ হোসেন পল্লব, ফরহাদুজ্জামান শাহী, এম সারওয়ার খান, এইচ আলিম, গৌরব চন্দ্র দাস, খায়রুল আহসান, এমকে সিদ্দিকী কামাল প্রমুখ।
আলোচনা সভার শুরুতেই মহান মুক্তিযুদ্ধে আত্মবলিদানকারি সকল শহীদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে দাঁড়িয়ে এক মিটিন নিরবতা পালন করা হয়। এর আগে সকালে বগুড়া কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন সংগঠনের সদস্যবৃন্দ।- সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

Close