অর্থ ও বাণিজ্যমহানগরশিরোনাম-২

রাজশাহীতে ফারইষ্ট ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানীর বিরুদ্ধে গ্রাহক হয়রানীর অভিযোগ


নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজশাহীতে ফারইষ্ট ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানী লিমিটেড এর বিরুদ্ধে গ্রাহক হয়নারী অভিযোগ পাওয়া গেছে। গ্রাহক ইমারত নির্মাণ শ্রমিক ইউনিয়ন বাংলাদেশের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও স্ব-মিল ব্যবসায়ী কাজেম আলী। তিনি বলেন, ৩১ ডিসেম্বর ২০০৯ সালে তিনি দশ বছর মেয়াদি একটি পলিসি করেন ফারইষ্ট ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানীতে। যার পলিসি নম্বর ৫২০২১৭২৬, এরিয়া-১২, জোট-২০, জেলা-৫২, ব্লক-৩২০৪ ও এজিএল-১৭১।
অত্র কোম্পানী রাজশাহী চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রী ভবনে ভাড়া অফিসে কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে। প্রতিমাসে তিনি ১০০৮ টাকা করে কিস্তি জমা দিতেন। যার মেয়াদ ৩০ নভেম্বর ২০১৯ সালে শেষ হয়েছে। তিনি হিসাব অনুযায়ী কোম্পানীর নিকট প্রায় এক লক্ষ আটাশি হাজার টাকা পাবেন। ষোল মাসের অধিক সময় পার হয়ে গেলে তিনি আজ পর্যন্ত তার টাকা পাননি বলে জানান কাজেম। টাকার কথা বলতে গেলে অফিস থেকে আরো দেরী হবে বলে বার বার তাকে ফেরত পাঠান।
তিনি আরো বলেন, অফিস থেকে তাকে জানানো হয় তার সিরিয়াল নাকী ৩২০০-৩৩০০ এর পরে রয়েছে। এই সিরিয়াল অনুযায়ী টাকা দেয়া হবে। দেড় বছরের অধিক সময়ে চলে গেলেও এখন পর্যন্ত কোম্পানী তাকে একটি টাকাও দেননি বলে জানান তিনি। এভাবে চললে জনগণকে বিমা থেকে মুখ ফিরিয়ে নেবে। বিমা পলিসি খোলার সময় নানা ধরনের লোভনীয় অফার বললেও কাজের সময় এর কিছুই নাই বলে জানান তিনি। দ্রুত তার টাকা দেয়ার জন্য অত্র কোম্পানীর উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষে হস্তক্ষেপ কামনা করেন কাজেম।
এদিকে এই অভিযোগ সম্পর্কে জানতে চাইলে অত্র কোম্পানীর অফিসার আব্দুল মালেক বলেন, হাতে ক্যাশ বা চেকের মাধ্যমে কোম্পানী এখন টাকা দেয়না। এখন কোম্পানীর নিয়মানুযায়ী গ্রহকের ব্যাংক হিসাব নম্বরে পর্যায়ক্রমে টাকা চলে যাবে। বর্তমানে প্রায় তিন হাজার পর্যন্ত সিরিয়ালের টাকা পরিশোধ হয়ে গেছে। তবে কাজেম আলীর সিরিয়াল হচ্ছে ৩৬৪০। আগামী আরো তিন থেকে চার মাস লাগবে এই টাকা গ্রাহকের হিসাব নম্বরে যেতে বলে জানান অফিসার আব্দুল মালেক।
বরেন্দ্র বার্তা/ফকবা/অপস

Close