অর্থ ও বাণিজ্যমহানগরশিরোনাম

মার্কেট খুলতে একাট্টা রাজশাহীর ব্যবসায়ীরা


নিজস্ব প্রতিবেদক: লকডাউন প্রত্যাহার করে নেয়াসহ মার্কেট খোলা রাখার দাবিতে একাট্টা রাজশাহীর ব্যবসায়ীরা। লিখিতভাবে রাজশাহী সিটি মেয়র, মহানগর পুলিশ কমিশনার এবং জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি দেয়াসহ আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনের পর এবার দাবি আদায়ে রাস্তায় নেমেছেন তারা। গতকাল সোমবার (৫ এপ্রিল) বেলা ১১টায় নগরীর সাহেব বাজার জিরো পয়েন্ট আরডিএ মার্কেটের সামনে জড়ো হয়ে বিক্ষোভ করেন সকল পর্যায়ের ব্যবসায়ীরা।
ব্যবসায়ীরা জানান, করোনার প্রকোপে সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় রাজশাহীতে শিক্ষার্থী নির্ভর ব্যবসায় একেবারে ধ্বস নেমেছে। শঙ্কট কাটিয়ে ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছেন তারা। কিন্ত ধাক্কা সামলিয়ে ওঠার আগেই সরকার ঘোষণা করেছে লকডাউন। যা তাদেরকে পথে বসাবে। এছাড়া দেশে বইমেলা চলছে, অথচ সাধারণ ব্যবসায়ীদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলা রাখতে সরকারের তরফ থেকে আপত্তি করা হচ্ছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে মার্কেট খোলা রাখতে চান তারা।
ব্যবসায়ীদের বিক্ষোভের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসেন জেলা প্রশাসনের অতিরিক্ত ম্যাজিস্ট্রেট আবু আসলাম, আরএমপির বোয়ালিয়া জোনের সহকারী কমিশনার (এসি) ফারজানা নাসরিন, বোয়ালিয়া মডেল থানার ওসি নিবারণ চন্দ্র বর্মণ, মালোপাড়া পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ইফতেখার আলম। তারা ব্যবসায়ী নেতাদের সঙ্গে আলোচনা করেন। এ সময় ব্যবসায়ী নেতারা তাদের দাবির বিষয়টি আবারো তুলে ধরলে প্রশাসনের প্রতিনিধিরা বিষয়টি নিয়ে উর্দ্ধতন পর্যায়ে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত জানাবেন বলে তাদেরকে আশ্বস্ত করেন। ফলে ব্যবসায়ীরা সড়ক ছেড়ে দিয়ে এ দিনের মতো বিক্ষোভ স্থগিত করেন।
পরে ব্যবসায়ী নেতারা সাংবাদিকদের জানান, প্রশাসনের আশ্বাসে বিক্ষোভ স্থগিত করা হয়েছে। মার্কেট খোলার দাবির পক্ষে তারা অনড় রয়েছেন। আজ মঙ্গলবার (৬ এপ্রিল) সকালে তারা আবারো রাস্তায় নামবেন এবং এদিন মার্কেটেও ঢুকবেন। দোকান খোলার প্রস্ততি নিয়ে মঙ্গলবার ব্যবসায়ীদের চাবি সঙ্গে নিয়ে আসতে বলা হয়েছে বলেও জানিয়েছেন তারা।
এ বিষয়ে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট (এডিএম) আবু আসলাম জানান, সারাদেশে লকডাউন চলছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে তারা জনগণকে উদ্বুদ্ধ করছেন। ব্যবসায়ীদের বিক্ষোভের খবরে তিনি ঘটনাস্থলে আসেন এবং ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কথা বলেন। সরকারের সিদ্ধান্তের বাইরে কোনো সিদ্ধান্ত তিনি দিতে পারবেন না। ব্যবসায়ীদের বিষয়টি নিয়ে উচ্চ পর্যায়ে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত জানানো হবে।
এদিকে রাজশাহীতে অনেকটা ঢিলেঢালাভাবে শুরু হয়েছে লকডাউন। প্রথম দিন জরুরি পরিষেবা ছাড়া সবকিছু বন্ধ থাকলেও কঠোরভাবে লকডাউন কার্যকরে মাঠে ছিলেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। সড়কে বাস না চললেও রিকশা, অটোরিকশা ও সিএনজি চলাচল করেছে। এসব পরিবহণে দুই-তিনজনের বেশি যাত্রী উঠানো হলে তাদেরেক নামিয়ে দিতে দেখা গেছে। তবে যাত্রীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের অভিযোগ ছিল পূর্বের মতোই।
রাজশাহী মহানগর পুলিশ কমিশনার আবু কালাম সিদ্দিক বলেন, রবিবার রাত থেকেই মার্কেট ও গণপরিবহন বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। প্রথম দিনে মানুষকে সচেতন করা হচ্ছে, জরুরী প্রয়োজন ছাড়া বাড়ির বাইরে যেন বের না হয়। তবে দ্বিতীয় দিন থেকে আরো কড়াকড়ি করা হবে।
বরেন্দ্র বার্তা/অপস

Close