অর্থ ও বাণিজ্যমহানগরশিরোনাম

স্বাস্থ্যবিধি মেনে দোকান খোলার দাবীতে রাজশাহীতে সংবাদ সম্মেলন


নিজস্ব প্রতিবেদক: সরকারী নির্দেশনা ও স্বাস্থ্যবিধ মেনে খোলার দাবীতে রাজশাহীতে রাজশাহীতে বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতি রাজশাহী শাখার আয়োজনে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে অত্র সমিতি কার্যালয়ে বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতির কেন্দ্রীয় কমিটির সংবাদ সম্মেলন থেকে আগামী ৫ আগস্টের পর জীবন জীবিকা বাচাঁতে ক্ষুদ্র ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, মার্কেট ও দোকানসমূহ খোলা রাখার দাবির প্রতি সমর্থন জানিয়ে বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতি রাজশাহী শাখা ও মহানগরীর বিভিন্ন ব্যবসায়ী সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা উপস্থিত থেকে কেন্দ্রীয় কমিটির দাবির প্রতি সমর্থন জানান।

লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতি রাজশাহী শাখার সভাপতি ও কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি – গোলাম সারওয়ার স্বপন । তিনি লিখিত ভাবে চারটি দাবী তুলে ধরেন। দাবীগুলো হলো, ৫ আগস্টের পর সব দোকার খুলে দেয়া, দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চল তথা হাট বাজারে বুথ খুলে টিকা প্রদানের ব্যবস্থা করা, এই কার্যক্রমে সরকার চাইলে ব্যবসায়ী নেতৃৃবন্দরা সবার্ত্মক সহযোগিতা করবেন, জনগণ মাস্ক না পরলে ও স্বাস্থ্যবিধি না মানলে আইন শৃংখলা বাহিনীকে লাঠি চার্জ করার অনুমতি দেয়ার দাবী জানান। প্রয়োজনে পনের দিন জরুরী অবস্থা জারী ঘোষনা করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনা ও বৈশ্বিক মহামারী করোনায় রাজশাহীর ক্ষতিগ্রস্থ ক্ষুদ্র ও অতি ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদেরকে এককালীন নগদ অর্থ প্রণোদনা হিসেবে দেয়ার জোর দাবী জানানো হয় সংবাদ সম্মেলন থেকে।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে স্বপন বলেন, রাজশাহীর ব্যবসা-বাণিজ্য ঈদ ভিত্তিক। মুলত দুই ঈদে কাপড়, ক্রোকারিজ, তৈরী পোষাকসহ অন্যান্য ব্যবসায়ীরা ব্যবসা করে থাকেন। আর সারা বছর কোনমতে চলে তাদের দোকান। এছাড়াও চলমান লকডাউনে প্রায় দেড় বছর ধরে মুখ থুবড়ে পরেছে ডেকোরেটর ব্যবসা। সরকারী নির্দেশনায় এখন কোন প্রকার অনুষ্ঠান হচ্ছেনা। এতে করে তাদের ডোকোরেটর সামগ্রী ব্যবহার না হওয়ায় নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। অনেকে এই ব্যবসা ছেড়েও দিয়েছে বলে জানান তারা। তবে ব্যবসা বন্ধ থাকায় মালিক ও কর্মচারীরা মানবেতর জীবন ধারন করছে। এই অবস্থা থেকে পরিত্রাণ পেতে দেকান খোলা ছাড়া তাদের কোন উপায় নাই বলে জানান তিনিসহ উপস্থিত ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ। তিনি আরো বলেন, ব্যবসায়ীরা সরকারের নির্দেশের বাহিরে নয়। সরকারের নিদের্শনার প্রতি পূর্ণ সমর্থন জানিয়ে নো-মাস্ক নো সার্ভিস নীতিতে ব্যবসা করতে চান বলে জানান এই ব্যবসায়ী নেতা।

বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতি রাজশাহী শাখার সভাপতি ও কেন্দ্রীয় কমিটির সহসভাপতি জনাব গোলাম সারওয়ার স্বপনের সভাপতিত্বে সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতি রাজশাহী শাখার সহ-সভাপতি ইব্রাহীম হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক ফারুক হোসেন, রাজশাহী নিউ মার্কেট ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি নুরুন্নবী লুলু, সাধারণ সম্পাদক মনজুর হোসেন চুমকুু, বাংলাদেশ রেস্তোরাঁ মালিক সমিতি রাজশাহী শাখার সভাপতি আলহাজ্জ রিয়াজ আহম্মেদ খান, বাংলাদেশ ইলেকট্রিক ব্যবসায়ী সমিতির রাজশাহী শাখার সভাপতি জয়নাল আবেদীন চাঁন্দ, রাজশাহী জেলা স্টেডিয়াম মার্কেট ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি শেখ মোহাম্মদ রেজাউর রহমান দুলাল, সাহেব বাজার বস্ত্র ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক খন্দকার শামিম আলম।

আরো উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ টাইল্স এন্ড মোজাইক মার্চেন্ট এসোসিয়েশন রাজশাহী শাখার সভাপতি আনসার আলী, হড়গ্রাম বাজার ও নিউ মার্কেট ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি ফিরোজ আক্তার লালন, ইলেক্ট্রনিক্স ব্যবসায়ী মালিক সমিতির সভাপতি আলহাজ্জ আজম, শিরোইল স্টেশন কাঁচাবাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক আশিক হাসান সুজন, রাজশাহী ইলেক্ট্রনিক্স টেকনিশিয়ান সমিতির সাধারণ সম্পাদক শরিফ উদ্দীন, নওদাপাড়া বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি সাহেব আলী ও সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সাত্তার, রাজশাহী ডেকোরেটর মালিক সমিতির সভাপতি এনতাজ আলী, বৃহত্তর লক্ষীপুর বাজার দোকান মালিক ও ব্যবসায়ী সমিতির সাংগঠনিক সম্পাদক বাইতুল ইসলাম, ভদ্রা বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সহ-সভাপতি আব্দুস সাত্তার, শালবাগান বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি সিরাজুল ইসলাম, সেলুন শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি আবুল, সাধারণ সম্পাদক মানিক, বাংলাদেশ পুস্তক প্রকাশক ও বিক্রেতা সমিতির রাজশাহী জেলা শাখার সভাপতি জামিলুর রহমান ও সহ-সভাপতি আলী নওয়াব স্বপনসহ মহানগরীর আরও অন্যান্য ব্যবসায়ী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।
বরেন্দ্র বার্তা/ফকবা/অপস

Close