সাহিত্য ও সংস্কৃতি

কথা সরকারের কবিতা

মায়া—১


.
তুই সহজ সরল ও মহৎ হতে পারতি, তুই আকাশের মত বিশাল হতে পারতি, কিংবা শিশির বিন্দুই মুক্তা হতে পারতি, তুই বেখেয়ালি মনেই ছুটেছিস বিস্তার করেছিস অপ্রত্যাশিত কর্ম। তুই পরিপাটি অঙ্গনা, হাসনাহেনা, বকুল ফুল হতে পারতি তব চাঁদ বদন মুখ দেখে উত্তাপ সূর্যটাও শীতল হতে পারতো, কঠিন রোগে আক্রান্ত রোগীটাও হয়তো একপ্রহর বাঁচতে চাই বলে চিৎকার করতো, হয়তো বিশ্ব ঘুরে তন্ন তন্ন করে তব পায়ে এনে দিত সব কটা পদ্ম ফুল। তুই হারিয়েছিস, হারাচ্ছিস এমন কিছু যা তুই কোনদিন স্বপ্নেও দেখিস নি, যার যোগ্য তুই নস, ছিলিসও না কোনদিন। সব কিছু তোর জন্য হৃদয় দানি সাজিয়ে হয়তো বসে থাকি অবুঝ আমি,
তার প্রতিদানে তুই কি দিয়েছিস? আর পেয়েছি কি আমি?

.

মায়া—২
.


মায়া তুই কেমন আছিস
দুঃখে কিংবা সুখে বাঁচিস
তুই একটি বারো নিলি না রে খবর মায়া রে তুই আজব স্বার্থপর। আমি থাকি তোর আশায়
মায়া তুই থাকিস আমায় ভূলে, কোন গগণে ভাসিস রে তুই
কোন সাগরের কূলে।
মায়া তুই হঠাৎ করে চলে গেলি দূরে পড়ে মনে সারাটি ক্ষণ,
ভূলি কিসের ছলে,
তুই আপন ছিলি আমি ছিলাম পর মায়া তুই আজব স্বার্থপর। ফুলের আশায় হাত বাড়ালাম কাঁটায় পেলাম শেষে,
মায়া তুই কোথায় আছিস
কোন আকাশে মিশে।
একটি বার আয় ফিরে আয়
কাটবো সাঁতার খালে বিলে, আবার না হয় যাবি চলে,
হৃদয় দুয়ার রাখবো খুলে,
তুই আপন ছিলি আমি ছিলাম পর মায়া তুই আজব স্বার্থপর।

.

মায়া—৩


.
মাঝে মাঝে নিজের উপর ক্ষিপ্ত হই, হিংস্র হই
করবো কিছু ক্ষতি,
তোর সাজানে বাগানে আগুন জ্বালিয়ে অবরোধ করে রাখি তোর শ্বাস-প্রশ্বাস তোর দুটি ডানা
এক পলকে ভেঙ্গে চুরমার করে দি তোর বিলাসিতার চাদর,
মিথ্যে কথার ঝুঁড়ি,
তোর শিরা উপশিরা স্তব্ধ করে দি। আমি পারতাম
আমি এখনো পারি,
তোর অহংকার,
তোর মায়াবী রুপ,
কবিতার মত দুটি আঁখি পুঁড়িয়ে অঙ্গার করে দিতে। তোর আকাশের প্রতিটি গ্রহ-নক্ষত্র আমার নয়নে প্রত্যেহ সূর্যের মত এখনো জ্বল জ্বল করে উঠে। তোকে এখনো মায়া বলেই ডাকি, পারি না প্রতিশোধ নিতে,
তোর শ্বাস-প্রশ্বাস অবরোধ করতে, তাই বলে ভাবিস না কষ্টে আছি, তুই আরো কতটা বিবেকহীন হতে পারিস, কতটা অভিনয়ে এ সুখ কুড়াতে পারিস, আমি হয়তো পারি নি নষ্ট মনের পরিচয় দিতে, যা তুই দিয়েছিস সুনিপুণ ভাবে।

Close