অর্থ ও বাণিজ্য

এইচ এস সির ফল প্রকাশ,জমবে মিষ্টি ব্যবসা

নিজস্ব প্রতিবেদক : এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল প্রকাশ হলো বৃহস্পতিবার।  মিষ্টি ব্যবসায়ীদের মতে, এসএসসি পরীক্ষার ফল প্রকাশের দিন এবং পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে বাংলাদেশে সবচেয়ে বেশি মিষ্টি বিক্রি হয়। সে তুলনায় এইচএসসি পরীক্ষার ফল প্রকাশের দিন এতোবেশি মিষ্টি বিক্রি হয় না। তারপরেও এদিন অন্য সাধারন দিনের তুলনায় বেচাকেনা অনেক বেশি হয়।

বাংলাদেশে একসময় পরীক্ষায় ভালো ফলাফল করলে কিংবা অন্য যে কোন শুভ সংবাদ দেওয়ার সময় মিষ্টি নিয়ে যাওয়াটা এক ধরনের সামাজিক নিয়ম হয়ে দাঁড়িয়েছিল। ছাত্রছাত্রী ও তাদের অভিভাবকদের আনন্দ-উচ্ছ্বাসে অন্যতম অনুসঙ্গও ছিল মিষ্টি বিতরণ। তাই পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশের দিন অতিরিক্ত চাহিদাকে মেটাতে তিন চার দিন আগে থেকেই দোকানদার ও কারিগররা মিষ্টি বানানোর জন্য ব্যাপক প্রস্তুতি নিতেন।

তবে নানা কারণে আগের চেয়ে মিষ্টি বিতরণের পরিমাণ কিছুটা কমে এসেছে দেশে। এর পেছনে স্বাস্থ্যসচেতনতা যেমন একটি কারণ তেমনি এখন আর আনন্দের সংবাদ ভাগাভাগি করে নিতে আগের মতো মিষ্টি বিতরণ করেন না সাধারণ মানুষ। আগে পরীক্ষার ফল প্রকাশের পর পাস করা পরিবারগুলোতে আনন্দের বন্যা বইত। আত্মীয়-স্বজনদের আনন্দের খবর দেওয়ার পাশাপাশি মিষ্টি মুখ করানোর প্রথা চালু ছিল।

অন্যদিকে বর্তমানে এসএসসি, এইচএসসি পরীক্ষায় পাসের হার অনেক বেশি। এছাড়াও লাখ লাখ ছাত্রছাত্রী প্রতি বছর এ প্লাস পাচ্ছে। দেশে শিক্ষার হার বেড়ে যাওয়ায় প্রতিটি পরিবারেই কম বেশি উচ্চ শিক্ষিত মানুষ রয়েছেন। সবার প্রত্যাশাই যেন এ প্লাস কিংবা গোল্ডেন এ প্লাস পাওয়া। ফলে পরীক্ষায় পাস করা কিংবা এ প্লাস পাওয়া প্রায় সব পরিবারেরই প্রত্যাশিত বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। অবস্থা এমন যে এখন অনেক পরিবার তাদের সন্তান গোল্ডেন এ প্লাস কিংবা এ প্লাস না পেলে এটাকে ভালো ফলাফল বলে মনে করেন না। আর এই কারণে মিষ্টি বিতরণের পরিমাণ কিছুটা কমে গেছে। আগে যেখানে পাস করলেই মিষ্টি বিতরণ করা হতো, এখন সেখানে কেবল এ প্লাস পেলেই তা বিতরণ করা হয়। বরেন্দ্র বার্তা/অপস

 

Close